শনি অভিযান শেষ করছে ক্যাসিনি

আমাদের ডেস্ক | প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১৪:৪৯

 শনি অভিযান শেষ করছে ক্যাসিনি

সৌরজগতের ৬ষ্ঠ ও দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রহি শনির রহস্য জানতে ১৯৯৭ সালে মহাকাশে যাত্রা করে অববিটার ক্যাসিনি হাইগেন্স। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা, ইউরোপীয় মহাকাশ সংস্থা এসা এবং ইতারির স্পেস এজেন্সি’র যৌথ উদ্যোগে তৈরি স্যাটেলাইট মহাকাশযানটি আর মাত্র ক’দিন পরই তার অভিযান শেষ করতে যাচ্ছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, প্রায় ১৩ বছর শনিভ্রমণ শেষ করে আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর অভিযান শেষ করতে চলেছে ক্যাসিনি। মূলত জ্বালানী ফুরিয়ে যাওয়ার কারণেই অভিযান আর দীর্ঘ করতে পারছে না মনুষ্যবিহীন মহাকাশযানটি। 

পৃথিবী থেকে যাত্রা করে শনির কাছে পৌঁছাতে ক্যাসিনির সময় লেগেছিলো প্রায় ৭ বছর। শেষ বারের মতো শনির চাঁদ টাইটানকে খুব কাছ থেকে প্রদক্ষিণ করে ক্যাসিনি অবশেষে ডুব দিবে শনির বরফাবৃত বলয়ের গভীরে। ক্যাসিনির এটাই হতে যাচ্ছে তার আত্মঘাতি চূড়ান্ত অভিযান। ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরাল এয়ার ফোর্স স্টেশন থেকে ১৯৯৭ সালের ১৫ অক্টোবর ক্যাসিনির সঙ্গে ইএসএ হইগেনস যাত্রা করে। ২০০৪ সালে হইগেনস’র সঙ্গে ক্যাসিনির বিচ্ছেদ ঘটে। হইগেনস ২০০৫ সালে টাইটানের মাটিতে তার দায়িত্ব পালনে নেমে যায়।

মূলত ক্যাসিনির মূল অভিযানের সময় নির্ধারিত ছিলো ২০০৪ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত। পরে অবশ্য ‘ক্যাসিনি ইকুইনক্স মিশন’ শিরোনামে ২০১০ পর্যন্ত তা বর্ধিত করা হয়। আর ২০১৭ পর্যন্ত দ্বিতীয় এবং শেষবারের মতো ‘ক্যাসিনি সলস্টিস মিশন’ হিসেবে বর্ধিত হয়ে এখন ক্যাসিনি তার শেষ অভিযান চালাতে যাচ্ছে।
২০০৪ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত শনির চতুর্দিকে প্রায় ৭৫ বার এবং টাইটানের কক্ষপথে প্রায় ৪৮ বার পদক্ষিণ করেছে ক্যাসিনি। অভিযানকালে শনির বলয়ের গঠন এবং তার উপগ্রহগুলোর ম্যাগনেটোস্ফিয়ার পর্যালোচনা করে ক্যাসিনি। জানায় একের পর এক চমকপ্রদ তথ্য।

ইকুইনক্স মিশন চলাকালীন সময়ে শনির বরফাবৃত গ্রহ এনসেলাডাসের যে ছবি ও তথ্য ক্যাসিনি পাঠায় তাতে প্রথমবারের মতো সক্রিয় ক্রায়ো ভলকানিজম পরিলক্ষিত হয়। ক্রায়ো-ভলকানো (Cryo-volcano) হলো বিশেষ ধরনের আগ্নেয়গিরি যা মূলত বরফাবৃত এবং লাভা হিসেবে পানি, তরল অ্যামোনিয়া অথবা মিথেন নির্গত হয়।

উত্তর গোলার্ধের একেবারে সর্বোচ্চ বিন্দুতে পৌঁছানো পর্যন্ত ক্যাসিনির বর্তমান মিশন সলিস্টিস চলমান রয়েছে। ২০১৭ সালের মে মাসে সূর্য পৌঁছে গেছে সেই বিন্দুতে। সলিস্টিস মিশনে ক্যাসিনি শনির ঋতু পরিবর্তন নিয়ে তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে পাঠিয়েছে পৃথিবীতে। আর চলতি মাসে এই মিশনের সমাপ্তি ঘটছে। তবে শনির গভীরে ডুব দিয়ে শেষ পর্যন্ত ক্যাসিনি তথ্য ও ছবি পাঠাতে থাকবে। এরপর ইতিহাসে ঠাঁই নেবে ক্যাসিনি।

শেষ অভিযানে ক্যাসিনি এমন কিছু তথ্য সংগ্রহের কাজ চালাচ্ছে যা পুরো অভিযানের আগে তা সম্ভব ছিলো না। এর মধ্যে রয়েছে, পুরো গ্রহের চৌম্বকক্ষেত্রের এবং অভিকর্ষীয় মানচিত্র তৈরি। শনির বলয়ের মোট উপাদানের পরিমাণ এবং তাদের মূল উৎপত্তিস্থল সম্পর্কে তথ্য। শনির বলয় আর গ্যাসীয় মেঘের একেবারে কাছ থেকে তোলা ছবি ইত্যাদি।

 

amaderpatrika.com/ ‍ss/ ra

 

আরও পড়ুন...