বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু সেপ্টেম্বরে

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ০৯ আগস্ট ২০১৮ ১১:৫৭

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু সেপ্টেম্বরে

প্রধানমন্ত্রীর তদারকির মধ্যদিয়ে আগামী সেপ্টেম্বর থেকে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের শুরু হচ্ছে বাণিজ্যিক কার্যক্রম। দেশী-বিদেশী প্রকৌশলীদের নিরলস প্রচেষ্টায় এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ। তথ্যপ্রযুক্তিতে দেশের চাহিদা পুরণ করে স্যাটেলাইটটির মাধ্যমে উন্মুচিত হলো বিপুল বৈদেশিক মুদ্রা আয়ের সম্ভাবনা।

দেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১’ মহাকাশে ডানা মেলার মাধ্যমে বিশ্বের ৫৭তম স্যাটেলাইট ক্ষমতাধর দেশ হিসেবে স্থান করে নিয়েছে বাংলাদেশ। গাজীপুর মহানগরের তেলীপাড়ায় টেলিযোগাযোগ স্টাফ কলেজের কাছে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর প্রাইমারি গ্রাউন্ড স্টেশন এবং বেতবুনিয়ার ব্যাকআপ গ্রাউন্ড স্টেশন দুটি প্রধানমন্ত্রীর ছেলে এবং তাঁর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নামে নামকরণ করে সম্প্রতি কেন্দ্র দু’টি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গাজীপুর গ্রাউন্ড স্টেশনে বাংলাদেশ ও ফ্রান্সের ৪০ জন প্রকৌশলী সার্বক্ষণিক কাজ করছেন ট্র্যাকিং ও কন্ট্রোলিংয়ে। এরই মধ্যে পুরো সিস্টেমটিকে টেস্টিং করা হয়েছে। ৪০ ট্রান্সপন্ডার সক্ষমতা সম্পন্ন স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ মূলত ব্যবহার করা হবে যোগাযোগ এবং সম্প্রচার কাজে। ২০টি ট্রান্সপন্ডার বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ প্রয়োজনে আর ২০টি ট্রান্সপন্ডার বিদেশি রাষ্ট্রের কাছে ভাড়া দেয়ার জন্য রাখা হবে বলে জানালেন প্রকৌশলীরা।

এই স্যাটেলাইটের মাধ্যমে দেশের বেসরকারি টেলিভিশগুলো চললে বাঁচবে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। এছাড়া স্যাটেলাইট থেকে পাওয়া যাবে উচ্চগতির ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ। যা দুর্গম এলাকায় ছড়িয়ে দিয়ে প্রাকৃতিক দুর্যোগের তথ্য, ই-লার্নিং, টেলিমেডিসিন সেবা ও আবহাওয়ার গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা যাবে। এছাড়া এই স্যাটেলাইটের অর্ধেক সক্ষমতা বিদেশিদের কাছে ভাড়া দিয়ে বছরে অন্তত ৫’শ কোটি টাকা আয় করা সম্ভব হবে বলে জানালেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক।

আরও পড়ুন...