নারী চলুক পরিবর্তনের চাপ ছাড়া

আমাদের ডেস্ক | প্রকাশিত: ০৪ মে ২০১৮ ২২:১৮

নারী চলুক পরিবর্তনের চাপ ছাড়া

বিয়ের পর নারী ও পুরুষ দুই জনের জীবনেই পরিবর্তন আসে। তবে নারীদের ক্ষেত্রে সে পরিবর্তন শুধু এক দিক দিয়ে নয়। বিবাহিত জীবনে একজন নারীকে যে সব দায়িত্ব ও পরিবর্তন মেনে নিতে হয় তা একজন পুরুষ কখনোই করেন না। বিশেষ করে শ্বশুরবাড়িতে একজন নারীর উপর তার আচরণের অনেক কিছু পরিবর্তনের চাপ আসে।

এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব সেন্ট্রাল আরাকানসাসের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক রিফাত আকতার বললেন, এ ধরনের বিষয়ে নারীর আচরণ নিয়ন্ত্রণ করার একটা প্রচেষ্টা আমরা সব সময়ে দেখি। বাংলাদেশের মতো একটা কঠিন পিতৃতান্ত্রিক সমাজে প্রত্যেকেই কোনো না কোনোভাবে নারী ও শিশুদের নিয়ন্ত্রণ করতে চায়।

কারণ তারা শারীরিকভাবে দুর্বল। একজন নারী যখন শাশুড়ি হন বা ননদ, ননাস তখন তারাও সুযোগ পেলে ছেলের বউ বা ভাইয়ের বউকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন। তার অবস্থানে রেখে তাকে বোঝার চেষ্টা করেন না। যেহেতু পিতৃতান্ত্রিক সমাজ এই নিয়ন্ত্রণকে সমর্থন করে, সেহেতু শ্বশুরবাড়ির লোকজন এসব না করার জন্য সামাজিক কোনো চাপও অনুভব করে না।

অন্যদিকে একটা ছেলেরও কিন্তু নানা রকম আচরণগত সমস্যা থাকতে পারে, যা তাদের বিবাহিত জীবনকে প্রভাবিত করে কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে ছেলেটিকে কেউই বিয়ের পর তার আচরণগুলো বদলানোর জন্য চাপ দেয় না। তবে এ অবস্থা খুব ধীরে ধীরে পাল্টাচ্ছে। কারণ অনেক স্বামী-স্ত্রী দুজনেই এখন বাইরে কাজ করেন।

 

 

আরও পড়ুন...