কোটা সংস্কার আন্দোলন: ঢাবির ১২ বিভাগের ক্লাস বর্জন

আমাদের প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ১৩ জুলাই ২০১৮ ১৭:৩২

কোটা সংস্কার আন্দোলন: ঢাবির ১২ বিভাগের ক্লাস বর্জন

কোটা সংস্কার আন্দোলনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা-মামলার প্রতিবাদে এবং দোষীদের শাস্তির দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তত ১২টি বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্লাস বর্জন করেছেন। 

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান, উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ (চতুর্থ বর্ষ), শান্তি ও সংঘর্ষ অধ্যয়ন (মাস্টার্স), বাংলা, আরবি, আইন, ব্যাংকিং অ্যান্ড ইন্স্যুরেন্স, অ্যাকাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম, মার্কেটিং, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট, মাইক্রোবায়োলজি এবং সমাজকল্যাণ ইনস্টিটিউটসহ বেশ কয়েকটি বিভাগে ক্লাস হয়নি। আইন বিভাগের পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে।

একাধিক শিক্ষার্থী জানান, কোটা সংস্কার আন্দোলন একটি যৌক্তিক দাবিনির্ভর আন্দোলন। এই আন্দোলনে হামলা ও মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদের অন্যায়ভাবে পুলিশে দেওয়ার প্রতিবাদে এবং তাদের ওপর হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও আটক আন্দোলনকারীদের মুক্তির দাবিতে তারা ক্লাস বর্জন করেছেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, আমরা প্রতিটি বিভাগের চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বিভাগে ক্লাস ও পরীক্ষা সঠিক সময়ে হয়েছে। তবে কোনো কোনো বিভাগে বিচ্ছিন্নভাবে হয়তো ক্লাস বর্জন হয়েছে।

গত বুধবার রাতে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা, ছাত্রী নির্যাতন, মামলা, রিমান্ডের নামে অমানসিক নির্যাতন বন্ধ, আটকদের নিঃশর্ত মুক্তি ও নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবিতে বৃহস্পতিবার থেকে সারাদেশের সব কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। হামলাকারীদের শাস্তি নিশ্চিত করা এবং কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের মুক্তি না দেওয়া পর্যন্ত তাদের এ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলেও জানানো হয়।

 

 

 

 

 

আরও পড়ুন...