কনস্যুলেটে ঢোকার সঙ্গেই খাসোগিকে হত্যা, লাশ টুকরো-টুকরো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | প্রকাশিত: ০১ নভেম্বর ২০১৮ ১১:০১

কনস্যুলেটে ঢোকার সঙ্গেই খাসোগিকে হত্যা, লাশ টুকরো-টুকরো

সাংবাদিক জামাল খাসোগি তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ঢোকার সাথে সাথে তাঁকে হত্যা করা হয় এবং মরদেহ কেটে টুকরো টুকরো করে সরিয়ে ফেলা হয়। বুধবার (৩১ অক্টোবর) তুরস্কের পক্ষে এই প্রথমবারের মতো খাসোগি হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে বিস্তারিত প্রকাশ করা হলো।

সৌদি আরবের প্রধান কৌঁসুলি শেখ সৌদ আল-মোজেব ইস্তাম্বুল ছাড়ার কয়েক ঘণ্টা পর এসব কথা প্রকাশ করলেন তুর্কি প্রধান কৌঁসুলি ইরফান ফিদান।

তুর্কি কৌঁসুলির বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সৌদি আরবের প্রধান কৌঁসুলি সঙ্গে তুর্কি কর্মকর্তাদের আলোচনায় কোনো ফল না আসায় খাসোগি হত্যাকাণ্ডের বিস্তারিত প্রকাশ করা আবশ্যকীয় হয়ে পড়েছে। তাই এ বিষয়ে বিস্তারিত প্রকাশ করা হলো।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, খাসোগি কনস্যুলেট ভবনে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে হত্যা করা হয়েছে। খাসোগি তাঁর বিয়ের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পেতে ওই কনস্যুলেটে ঢুকেছিলেন।

২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেট ভবনে প্রবেশের পর থেকে আর খোঁজ মিলছিল না সাংবাদিক জামাল খাসোগির। শুরু থেকেই তুরস্ক দাবি করে আসছিল, রিয়াদ থেকে ইস্তাম্বুলে আসা ১৫ জন সৌদি চর কনস্যুলেট ভবনের ভেতরে খাসোগিকে হত্যা করে মরদেহ টুকরো টুকরো করে ফেলেছে। সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নির্দেশে তাঁকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

খাসোগি নিখোঁজের ১৭ দিন পর প্রথমবারের মতো এক বিবৃতিতে খাসোগিকে হত্যার কথা স্বীকার করে সৌদি আরব।

তবে দেশটি প্রথমে খাসোগির মৃত্যুর ব্যাখ্যায় বলে, কনস্যুলেট ভবনে কয়েকজন সৌদি নাগরিকের সঙ্গে হাতাহাতির ঘটনায় খাসোগি মারা যান। পরে দেশটির পক্ষ থেকে দেওয়া আরেক বিবৃতিতে বলা হয়, খাসোগিকে হত্যা করা হয়েছে, তবে তা পূর্বপরিকল্পিত নয়। এ ব্যাখ্যাও ধোপে টেকেনি। পরে সৌদি কর্তৃপক্ষ বলেছে যে খাসোগিকে ভেবেচিন্তেই খুন করা হয়েছে।

খাসোগি হত্যার ঘটনায় সৌদি আরব দেশের ১৮ জন নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে।

আরও পড়ুন...