প্রার্থীদের সুরক্ষা দেবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

news-details
জাতীয়

।। নিজস্ব প্রতিবেদক ।।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সুরক্ষা দেবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি)কেএম নুরুল হুদা।

আজ রোববার বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে নির্বাচনী সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলন তিনি এ কথা বলেন।

সিইসি কেএম নুরুল হুদা বলেন, ‘ভোট কেন্দ্র, নির্বাচনের সামগ্রী, ভোট গ্রহণের সাথে সম্পৃক্ত কর্মকর্তা, পোলিং এজেন্টসহ সকলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য সশস্ত্র বাহিনী, বিজিবি, র্যা ব এবং পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’

নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনী তদন্ত কমিটি, বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কর্মরত রয়েছেন বলে জানান তিনি।

নির্বাচন বিবেচনায় কেন্দ্রের অবস্থা সবার উপরে উল্লেখ করে সিইসি বলেন, ‘কেন্দ্রগুলোর সাফল্যের ওপর ভর করে নির্বাচনের সাফল্য নির্ভর করে।  সেখানে কর্মরত থাকেন- প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং এজেন্ট, পোলিং এজেন্ট, সাংবাদিক, পর্যবেক্ষক এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যগণ। তাদের প্রত্যেকে সুনির্দিষ্ট দায়িত্ব পালন করে থাকেন, প্রত্যেকেরই উদ্দেশ্য থাকে কেন্দ্রে সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশ সমুন্নত রাখা।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রিজাইডিং অফিসার আজ রাতের মধ্যে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে পৌঁছে যাবেন। পুলিশ ও আনসার বাহিনীর প্রহরায় নির্বাচনী মালামালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন।’

‘প্রিজাইডিং অফিসার আগামীকাল (রোববার) সকাল ৭টার মধ্যে নির্বাচন পরিচালনার কাজ শুরু করবেন’ জানিয়ে নুরুল হুদা বলেন, ‘প্রথমেই তিনি তার সহযোগীদের মধ্যে দায়িত্ব বণ্টন করে দেবেন, নির্বাচন শুরু করার পূর্বে তিনি ব্যালট বক্স খুলে প্রার্থিদের এজেন্ট এবং অন্যান্য সকলের উপস্থিতিতে সকলকে ব্যালট বক্স খালি রয়েছে কিনা তা দেখিয়ে নিবেন। তারপর বক্সটি তালাবদ্ধ করবেন এবং সকাল ৮টার দিকে ভোট গ্রহণ শুরু করবেন।’

‘নির্বাচন শেষ হলে এজেন্ট, সাংবাদিক, পর্যবেক্ষকের সামনে কেন্দ্রের ব্যালট গণনার কাজ শুরু করবেন।  কোনো অবস্থায় নির্বাচনী কেন্দ্রের বাইরে ব্যালট গণনা করা যাবে না।  ফলাফলের একটি তালিকা অবশ্যই প্রত্যেক এজেন্টকে বহন করতে হবে’ বলে আরও জানান সিইসি।


 

You can share this post on
Facebook

0 Comments

If you want to comment please Login. If you are not registered then please Register First