মেনন-ইনুর বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলার আবেদন খারিজ

news-details
আইন-আদালত

।। নিজস্ব প্রতিবেদক ।।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি এবং জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতাসহ বিভিন্ন অভিযোগে দায়ের করা একটি নালিশি মামলার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম শাহিনূর রহমান আবেদন খারিজ করে দেন।

সোমবার সকালে ঢাকা সিএমএম আদালতে এ মামলার আবেদন করেন ‘রহমতে আলম সাল্লেল্লাহ আলাইহে ওয়াছাল্লাম ইন্টারন্যাশনাল’ মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা মুফতি মাহমুদুল হাসান শরীয়তপুরী।

নালিশি মামলা দায়ের এবং খারিজ করার বিষয়টি বাদীর আইনজীবী মাহবুবুল আলম দুলাল নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় বলা হয়, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কওমি শিক্ষাকে যুগোপযোগী করার জন্য দাওরায়ে হাদিসকে স্নাতকোত্তর মর্যাদার স্বীকৃতি দেন। প্রধানমন্ত্রীর ওই স্বীকৃতি প্রদানের জন্য তাকে কওমি শিক্ষার মুরুব্বি আহমদ শফির নেতৃত্বে লক্ষ লক্ষ কওমি আলেম প্রধানমন্ত্রীকে ‘কওমি জননী’ খেতাব দিয়েছেন। কওমি শিক্ষাকে প্রধানমন্ত্রী স্বীকৃতি দেওয়ার পর ইসলামবিদ্বেষী নাস্তিক মুরতাদদের গাত্রদাহ শুরু হয়।

মামলায় আরো বলা হয়, আসামিরা ইদানিং মন্ত্রিপরিষদ থেকে বাদ পড়েন। তারা ক্ষমতা হারানোয় দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির জন্য আহমদ শফিকে ‘তেঁতুল হুজুর’সহ বিভিন্ন উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রদান করেছেন। যা এ মুসলিম প্রধান দেশে জনগণের মধ্যে বিদ্বেষ সৃষ্টির মাধ্যমে দেশকে অরাজকতার মধ্যে ঠেলে দিয়েছে। এছাড়া, আসামিরা জাতীয় সংসদে কওমি শিক্ষাকে বিষবৃক্ষের সঙ্গে তুলনা করে ইসলামী শিক্ষাকে মোল্লাতন্ত্র বলে আখ্যা দিয়েছেন। যা দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমান জনগোষ্ঠেী ও ধর্মীয় আধ্যাত্মিক নেতা আহমদ শফিসহ আলেম সমাজের মধ্যে জনরোষ ও ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।