খাশোগিকে বিপদজ্জনক মনে করতেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স

news-details
রাজনীতি

সৌদি রাজতন্ত্র বিরোধী সাংবাদিক জামাল খাশোগি নিঁখোজ হওয়ার কয়েকদিন পর তাকে উগ্র ইসলামিস্ট বলে দাবি করেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।

সৌদি রাজতন্ত্র বিরোধী সাংবাদিক জামাল খাশোগি নিঁখোজ হওয়ার কয়েকদিন পর তাকে উগ্র ইসলামিস্ট বলে দাবি করেন সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান।

খাশোগিকে হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে নেওয়ার আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা জেরাড কুশনার এবং দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা পরামর্শক জন বোল্টনের সাথে টেলিফোনে আলাপকালে ক্রাউন প্রিন্স এ কথা বলেন।

সম্প্রতি ওয়াশিংটন পোস্ট এবং নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তবে সৌদির তরফ থেকে এই প্রতিবেদনের সত্যতা অস্বীকার করা হয়েছে।

ওয়াশিংটন পোস্টের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জামাতা জেয়ার্ড কুশনার এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের সঙ্গে ফোনালাপে প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান বলেছেন, খাশোগি মুসলিম ব্রাদারহুডের সদস্য ছিলেন।

ধারণা করা হচ্ছে, খাশোগি নিখোঁজ হওয়ার এক সপ্তাহ পরে অক্টোবরের ৯ তারিখে প্রিন্সের সঙ্গে কুশনার ও জন বোল্টনের ফোনালাপ হয়েছে।

এদিকে মুসলিম ব্রাদারহুডের সঙ্গে সম্পৃক্ততার বিষয়টি খাশোগির পরিবার থেকে অস্বীকার করা হয়েছে। তিনি কখনই, কোনভাবেই বিপজ্জনক ছিলেন না বলেও উল্লেখ করে তার পরিবার।

গত ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশের পর নিখোঁজ হন জামাল খাশোগি। প্রথম দিকে খাশোগির মৃত্যুর বিষয়টি স্বীকার করেনি সৌদি।  পরে কনস্যুলেটের ভেতরেই এক সংঘর্ষে খাশোগি নিহত হয়েছেন বলে জানানো হয়।

সম্প্রতি তুরস্কের তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, কনস্যুলেটে প্রবেশের পর পরই খাশোগিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

এখনো খাশোগির লাশ পাওয়া যায়নি।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

If you want to comment please Login. If you are not registered then please Register First