ওদের পরিবারে ঈদ এলো কান্না নিয়ে

news-details
জাতীয়

ডেস্ক রিপোর্ট

মাত্র দুই বা তিন দিন পরই ঈদ। এর মধ্যেই গতকাল রোববার দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছেন ২০ জন। আনন্দ নয়, ওদের পরিবারে ঈদ এলো কান্না নিয়ে। নিহতদের মধ্যে বাস ও যাত্রীবাহী লেগুনার সংঘর্ষে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় নয়জন ও সুনামগঞ্জে সাতজন নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া ময়মনসিংহের ভালুকায় পৃথক ঘটনায় ইউপি সদস্যসহ দু'জনের, লক্ষ্মীপুরে ট্রাক-অটোরিকশার সংঘর্ষে একজন, চট্টগ্রামের পটিয়ায় মাইক্রোবাসের ধাক্কায় এক মোটরসাইকেল আরোহী, বাগেরহাটে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় শিশু ও নাটোরের বড়াইগ্রামে মাইক্রোবাস উল্টে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রোববার ও শনিবার রাতে এসব দুর্ঘটনা ঘটে। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

সিরাজগঞ্জ ও উল্লাপাড়া :উল্লাপাড়া উপজেলার বোয়ালিয়া বাজারের পাশে ঢাকা থেকে পাবনাগামী পাবনা এক্সপ্রেস বাসের সঙ্গে একটি যাত্রীবাহী লেগুনার মুখোমুখি সংঘর্ষে নয়জন নিহত ও দু'জন আহত হন। তারা সবাই লেগুনার যাত্রী ছিলেন। গতকাল রোববার দুপুর ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- লেগুনার চালক উল্লাপাড়ার পাগলা গ্রামের রেজাউল ইসলাম (৩২), কয়ড়া কৃষ্ণপুর গ্রামের সবুজ হোসেন (৩০), মোহাম্মাদ আলী (৩৫), জয়ান উদ্দীন (৩৪), নুরে ইসলাম (৩৩), ফজলুল হক (৪৫), উল্লাপাড়ার বড়হর গ্রামের আক্তার হোসেন (৪২), বেতকান্দি গ্রামের আব্দুল মান্নান (৪৫) ও কোনাগাঁতী গ্রামের হাফিজুল ইসলাম (৩৩)। 

উল্লাপাড়া থানার উপপরিদর্শক নুরে আলম জানান, লেগুনাটি চালকসহ ১১ জন যাত্রী নিয়ে উল্লাপাড়া থেকে হাটিকুমরুল যাচ্ছিল। বোয়ালিয়া বাজারের গরুর হাটের পাশে পাবনা এক্সপ্রেসের সঙ্গে এর মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। দুর্ঘটনার পর ফায়ার সার্ভিস, উল্লাপাড়া থানা পুলিশ ও হাটিকুমরুল হাইওয়ে পুলিশ সদস্যরা হতাহতদের উদ্ধার করেন। নিহতদের লাশ হাইওয়ে থানা চত্বরে রাখা হয়েছে। আহতদের সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পুলিশ বাসটি আটক করলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, রোববার বোয়ালিয়া বাজারে গরুর হাট থাকায় গরুবাহী বেশ কয়েকটি নছিমন ও করিমন মহাসড়কের ওপর ছিল। এসব গাড়ির কারণেই দুর্ঘটনা ঘটেছে। এদিকে দুর্ঘটনার প্রায় দেড় ঘণ্টা পর ওই পথে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ ঘটনায় উল্লাপাড়া থানায় মামলা হয়েছে। 

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী জানান, দুর্ঘটনার পর আহতদের দ্রুত হাসপাতালে পাঠানো হয়। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে। 

সুনামগঞ্জ :দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পাথারিয়া ইউনিয়নের গণিগঞ্জ এলাকায় বাসের সঙ্গে লেগুনার সংঘর্ষে ৭ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ৭ জন আহত হয়েছেন। হতাহতরা সবাই লেগুনার যাত্রী। রোববার ভোরে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লেগুনাটি সুনামগঞ্জ থেকে দিরাই যাচ্ছিল। আর লিমন পরিবহন নামের বাসটি ঢাকা থেকে দিরাই উপজেলা সদরে যাত্রী নামিয়ে সুনামগঞ্জের দিকে ফিরছিল। লেগুনায় ১৪-১৫ জন যাত্রী ছিলেন। মুখোমুখি সংঘর্ষে লেগুনাটি দুমড়েমুচড়ে যায়। দুটি পরিবহনই সড়ক থেকে ছিটকে খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই চালকসহ ছয়জন নিহত হন। নিহতরা হলেন- দক্ষিণ সুনামগঞ্জের দুর্বকান্দার মোহাম্মদ আলীর ছেলে আফজাল হোসেন (১৬), ফয়জুল ইসলামের ছেলে মিলন মিয়া (১৫), ইস্তফা মিয়ার ছেলে সাগর মিয়া (১৬), গাগলি গ্রামের আলী আকবরের ছেলে লেগুনা চালক রোমান (২৪), শাল্লা উপজেলার নিয়ামতপুর গ্রামের অনিন্ত কুমার দাসের ছেলে নিমেশ চন্দ্র দাস (২২) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার কুটি গ্রামের নারায়ণ চন্দ্র সাহার ছেলে শিপন কুমার সাহা (৩৩)। 

সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম জানান, দুর্ঘটনায় আহত আটজনকে সদর হাসপাতালে আনা হয়। তাদের ছয়জনকে গুরুতর অবস্থায় সিলেট পাঠানো হলে পথেই মারা যান দিরাই উপজেলার সিচনী গ্রামের ফুল মিয়ার ছেলে ফজল করিম (৩০)। আহত দু'জন সুনামগঞ্জে ও পাঁচজন সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি হারুনুর রশিদ জানান, নিহতদের পরিচয় পাওয়া গেছে। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। 

ভালুকা (ময়মনসিংহ) : ভালুকায় রোববার দুপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে পৌরসভার বাগরাপাড়া এলাকায় একটি যাত্রীবাহী ভ্যানকে একটি ট্রাক চাপা দিলে ছয় ভ্যানযাত্রী আহত হন। তাদের ভালুকা হাসপাতালে নেওয়ার পর নাজমুল (৪০) নামে একজন মারা যান। নিহত নাজমুল পাশের গফরগাঁও উপজেলার রসুলপুর গ্রামের রতন মিয়ার ছেলে। অন্যদিকে শনিবার রাতে একই মহাসড়কের ভরাডোবা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাস্তা পারাপারের সময় মুরগিবোঝাই ট্রাকের চাপায় নজরুল ইসলাম (৪৫) নামে এক ইউপি সদস্য নিহত হন। নজরুল ইসলাম পাশের ফুলবাড়িয়া উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও ভবানীপুর গ্রামের জাহান আলীর ছেলে। 

লক্ষ্মীপুর :লক্ষ্মীপুর-রায়পুর সড়কের দালাল বাজার এলাকায় রোববার বিকেলে ট্রাক ও অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে খুশি বেগম নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। তিনি সদর উপজেলার গঙ্গাপুর এলাকার শাহজাহান মিয়ার স্ত্রী। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সিএনজিচালিত অটোরিকশায় গঙ্গাপুর থেকে দালাল বাজারের দিকে যাচ্ছিলেন খুশি বেগম। অটোরিকশাটি দালাল বাজার এলাকায় পৌঁছলে বিপরীত দিকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে আহত হলে সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক খুশি বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন। সদর থানার ওসি লোকমান হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পটিয়া (চট্টগ্রাম) : চট্টগ্রামের পটিয়া বাইপাসের ভাটিখাইন এলাকায় রোববার দুপুর দেড়টার দিকে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় নিতাই সরদার নামে এক মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। নিতাই পটিয়া পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের উপেন্দ্র সরদারের ছেলে। 

বাগেরহাট :বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার কাঁঠালতলা গোডাউন মোড় এলাকায় গতকাল সকালে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় মুফতা (৬) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সে সদর উপজেলার ষাটগম্বুজ গ্রামের মুক্ত শেখের মেয়ে। কাটাখালী হাইওয়ে থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মলয়ন্দ্রনাথ রায় বলেন, একা একা রাস্তা পার হতে গিয়ে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় গুরুতর আহত হয় মুফতা। ফকিরহাট উপজেলা হাসপাতালে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়। 

বড়াইগ্রাম (নাটোর) :নাটোরের বড়াইগ্রামে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি বাস গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। নিহতের নাম মারিয়া তাসনিম মীরা (৮)। সে ডিএমপিতে কর্মরত পুলিশের উপপরিদর্শক আব্দুল জলিলের মেয়ে। এ ঘটনায় তার বাবাসহ পরিবারের ছয় সদস্য আহত হয়েছেন। গতকাল সকালে উপজেলার মহিষভাঙ্গা এলাকায় পাটোয়ারী তেল পাম্পের কাছে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন জানান, ঢাকার কদমতলী থানায় কর্মরত পুলিশের উপপরিদর্শক আব্দুল জলিল ঈদের ছুটি কাটাতে পরিবার নিয়ে মাইক্রোবাসে করে নাটোরের সিংড়ার বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে মাইক্রোবাসটি সড়কের পাশে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে উল্টে যায়। এতে ওই শিশুর মৃত্যু হয়।

টাঙ্গাইল :টাঙ্গাইলে শনিবার রাত ও রোববার সকালে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ভাতকুড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনর্চাজ বাসুদেব সিনহা বলেন, ভাতকুড়ায় রোববার সকালে উত্তরবঙ্গগামী একটি বাস পেছন দিক থেকে একটি মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয়। এতে মাইক্রোবাসের আট যাত্রী আহত হন। শনিবার রাত ১১টার দিকে একই এলাকায় উত্তরবঙ্গগামী একটি বাসের সঙ্গে একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে বাসের ১২ যাত্রী আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।