পরিবহনে চাঁদাবাজ চক্রের ১৯ জন গ্রেফতার

news-details
ক্রাইম নিউজ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন পয়েন্টে পরিবহনে চাঁদাবাজি এবং যাত্রী হয়রানির অভিযোগে চাঁদাবাজ চক্রের ১৯ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ সদস্যরা।

সোমবার ভোর থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর, বন্দরের মদনপুর এবং সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল এলাকায় মহাসড়কে চাঁদাবাজির সময় হাতেনাতে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। র‌্যাব এসময় তাদের কাছ থেকে চাঁদাবাজির এক লাখ ছয় হাজার টাকা জব্দ উদ্ধার করে। পরে কাঁচপুর এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে প্রেস ব্রিফিংয়ে র্যাবের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আলেপ উদ্দিন গণমাধ্যমকে এ সব তথ্য জানায়।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- মোশারফ, শামীম, রাব্বী ওরফে বাবর, খোরশেদ আলম ইমন, কাজী এরশাদুজ্জামান, আবদুল কাদের সুমন, জাহাঙ্গীর আলম, আলমগীর হোসেন, আবদুস সালাম, জিয়াউর রহমান, মাহফুজুর রহমান, মহসিন মিয়া, মনসুর আলী, আরশাদ মোল্লা, জহুর আকন্দ, ওমর ফারুক, হুমায়ুন কবীর, হাসান কাউছার ও মনিরুল ইসলাম।

প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব -১১ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: আলেপ উদ্দিন জানান, ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, অজ্ঞান পার্টি ও মলম পার্টিসহ সব ধরণের অপরাধ দমনে রমজান মাসের শুরু থেকেই র্যাব তৎপর রয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় র্যাবের গোয়েন্দা দল ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে বাস, ট্রাক, ট্যাঙ্কলরি ও কাভার্ডভ্যান সহ বিভিন্ন পরিবহনে চাঁদাবাজ চক্রের তথ্য সংগ্রহ করে। সেই তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব সোমবার অভিযান চালিয়ে চাঁদাবাজ চক্রের এই ১৯ জনকে চাঁদা আদায়ের সময় হাতেনাতে আটক করে।

র‌্যাব  জানায়, আটকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পরিবহন চাঁদাবাজ চক্রের নেপথ্যে যারা নিয়ন্ত্রণ করছে তাদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেছে। এই চক্রের নেপথ্যের গডফাদাররা যতোই প্রভাবশালী হোক তাদের কাউকেই র্যাব ছাড় দেবে না। আটককৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে র্যাব জানিয়েছে। র্যাবের ঐ কর্মকর্তা আলেপ উদ্দিন আরো বলেন, চাদঁবাজদের বিরুদ্ধে র্যাবের অভিযান অব্যহত থাকবে। এর আগে গত ৩১ মে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভন্ন পয়েন্ট চাঁদাবাজির সময় অর্ধ লক্ষাধিক টাকাসহ পরিবহন চাঁদাবাজ চক্রের ১৩ জনকে গ্রেফতার করে র্যাব।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।