ঈদের দিন সড়কে ঝরল ১১টি প্রাণ

news-details
জাতীয়

আমাদের প্রতিবেদক

পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন ঢাকাসহ ঝিনাইদহ, ফরিদপুর, লালমনিরহাটে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে। বুধবার দিবাগত রাত থেকে সকাল পর্যন্ত সড়কে পৃথক দুর্ঘটনায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ঢাকায় দুইটি পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন ও সাভারের আমিনবাজারে আরেক সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার রাত ও আজ বুধবার ভোরের দিকে এ তিনটি দুর্ঘটনা ঘটে। এতে গুলশানে একজন, বংশালে একজন ও সাভারের আমিনবাজারে একজন মারা গেছেন।

গতকাল দিবাগত রাত দেড়টার দিকে গুলশান থানার বসুন্ধরা গেটের বিপরীতে একটি প্রাইভেট কার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফুটপাতের বিদ্যুতের খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা খায়। ওই গাড়িতে থাকা নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাকিব চৌধুরী (২৩) ও তার মামাতো ভাই ফারদিন খান (২৪) গুরুতর আহত হন। তাদের উদ্ধার করে অ্যাপোলো হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা সাকিবকে মৃত ঘোষণা করেন। তাদের বাড়ি নয়াপল্টনে।

বংশালের আলুবাজারে পৃথক আরেকটি দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন কাভার্ড ভ্যানের চালকের সহকারী আবদুর রহমান (৪০)। বুধবার ভোর চারটার দিকে কাভার্ড ভ্যান থেকে মাল নামানোর সময় মাটিভর্তি একটি ট্রাক তাকে চাপা দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অন্যদিকে, আমিনবাজার ভাঙা ব্রিজের কাছে কাঁচামাল বোঝাই মিরপুরগামী একটি পিকআপ ভ্যান উল্টে এর চালক মইনুদ্দিন (৩০) আহত হন। রাত তিনটার দিকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসেন পথচারীরা। পরে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ঢাকা মেডিকেল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ঝিনাইদহের মহেশপুরে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুইজন নিহত ও একজন আহত হয়েছেন। বুধবার সকাল ৯টার দিকে মহেশপুর উপজেলার খর্দ খালিশপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- চুয়াডাঙ্গা জেলার বারান্দী গ্রামের মো. আসাদুল ইসলামের ছেলে রানা (২৪) ও ঝিনাইদহের কোর্টচাঁদপুর উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামে মো. আবদুল আলিমের ছেলে বিপুল হোসেন (২৪)। গুরুতর আহত চুয়াডাঙ্গার বারান্দী গ্রামের মো. ফয়েজউল্লার ছেলে ফিরোজ আহমেদকে (২২) যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

অপরদিকে, ফরিদপুরের ধুলদী রেলগেট এলাকায় একে ট্রাভেলসের একটি যাত্রীবাহী বাস ঢাকা থেকে চুয়াডাঙ্গা যাওয়ার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে ৬ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

ফরিদপুর ফায়ার স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. নুরুল আলম দুলাল জানান, গাড়ির ভেতর থেকে নিহত ৪ জন যাত্রীর লাশসহ মোট ১৭ জনকে উদ্ধার করি। আহত ১৩ যাত্রীকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠাই। সেখানে আরও দুইজন যাত্রীর মৃত্যু হয়। বাকিরা চিকিৎসাধীন। হতাহতদের নাম পরিচয় তাৎক্ষনিক ভাবে জানা যায়নি।

লালমনিরহাট উপজেলার বড়বাড়ি ইউনিয়নের শিমুলতলা বাজারে বুধবার সকাল সাড়ে ৬টায় কুড়িগ্রাম-রংপুর মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছেন।

পুলিশ জানায়, রংপুর থেকে আসা একটি পিকআপ ভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশের শহীদ মিনারে ধাক্কা লেগে উল্টে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে দুইজন এবং লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও একজন মারা যান। আহত হন অন্তত ১০জন। নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।