হাত হারানো পর রাজীবের মৃত্যুতে প্রতিবেদন ৬ ফেব্রুয়ারি

news-details
আইন-আদালত

।।  আদালত প্রতিবেদক ।।

দুই বাসের রেষারেষিতে তিতুমীর কলেজের স্নাতক বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেনের এক হাত  বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর মৃত্যুর মামলায় প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ পিছিয়ে আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি ধার্য করেছেন আদালত।

আজ সোমবার পুলিশ প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর হাকিম সারাফুজ্জামান আনছারী এ দিন ধার্য করেন।

মামলার আসামি বিআরটিসি বাসের চালক মো. ওয়াহিদ (৩৫) ও স্বজন পরিবহনের বাসের চালক মো. খোরশেদ (৫০) বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন। আসামিদের গত ৫ এপ্রিল ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। এরপর গত ৮ এপ্রিল তাদের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়। পরে ৩ দফা জামিনের আবেদন করা হলেও তা নামঞ্জুর হয়।

উল্লেখ্য, গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যে যাচ্ছিলেন রাজধানীর মহাখালীর সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকের (বাণিজ্য) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেন (২১)। হাতটি বেরিয়েছিল সামান্য বাইরে। হঠাৎই পেছন থেকে স্বজন পরিবহনের একটি বাস বিআরটিসির বাসটিকে গা ঘেঁষে ওভারটেক করার সময় রাজীবের ডান হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দু-তিনজন পথচারী দ্রুত তাকে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু চিকিৎসকেরা চেষ্টা করেও বিচ্ছিন্ন হাতটি রাজীবের শরীরে আর জুড়ে দিতে পারেননি।

পরে গত ১৬ এপ্রিল দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রাজীব। মামলাটি প্রথম দণ্ডবিধির ২৭৯ ও ৩৩৮(ক) ধারায় দায়ের করা হয়। পরে রাজিব মারা যাওয়ায় ধারা পরিবর্তন করে দণ্ডবিধির ৩০৪(ক) অর্ন্তভুক্ত করা হয়।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

If you want to comment please Login. If you are not registered then please Register First