গরুর মাংসে হাড় বেশি, সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত অর্ধশতাধিক

news-details
দেশজুড়ে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ঢাকা-সিলেট ও কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিশ্বরোড মোড়ে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ কমপক্ষে অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। সে সময় ওই মহাসড়কে প্রায় ১ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত জেলার সরাইল উপজেলার কুট্টাপাড়া ও সদর উপজেলার খাটিহাতা গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আহতদের স্থানীয় ও জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়ছে, শুক্রবার সকালে বিশ্বরোড মোড়ে সরাইল উপজেলার কুট্টাপাড়া গ্রামের সোলাইমান মিয়ার ছেলে কালু কসাইয়ের (৪৫) কাছ থেকে গরুর মাংস কিনতে আসে পার্শ্ববর্তী সদর উপজেলার খাটিহাতা গ্রামের আব্দুল খালেক মিয়ার ছেলে ধন মিয়া। মাংসে হাড়ের পরিমাণ বেশি দেওয়া নিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে দুইজনের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এ সময় কালু কসাই তার হাতে থাকা ছুরি দিয়ে আব্দুল খালেকের ছেলে ধন মিয়ার হাতে আঘাত করে। এতে কুট্টাপাড়া গ্রামের রফিজ উদ্দিনের ছেলে দীপু তাকে জিজ্ঞাসা করলে তাকেও ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করে। মুহূর্তের মধ্যে এ ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়লে দু’পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে এসে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে সরাইল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর ও খাটিহাতা হাইওয়ে থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিপুল পরিমান কাঁদানে গ্যাসের শেল ও রাবার বুলেট ছুড়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের লোকজন ও পুলিশসহ অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়েছে। আহতরা গ্রেপ্তার আতঙ্কে শহরের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা নেয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় পুলিশের বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছে। সংঘর্ষ থামাতে অন্তত ৩০ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করতে হয়েছে।

সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে জানিয়ে তিনি আরও জানান, যেকোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। বর্তমানে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান ওসি।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।