যুক্তরাষ্ট্রে গ্রেফতার বাংলাদেশি আশিকুলের জামিন নামঞ্জুর

news-details
আন্তর্জাতিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

টাইমস স্কয়ারে হামলা পরিকল্পনার অভিযোগে নিউ ইয়র্কে গ্রেফতার হওয়া বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক আশিকুল আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালতে তার বিরুদ্ধে হামলা পরিকল্পনার অংশ হিসেবে অবৈধভাবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অভিযোগ আনা হয়েছে। আশিকুলের জামিন আবেদনও নাকচ করে দিয়েছে আদালত। ফেডারেল কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স এসব তথ্য জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের টাইমস স্কয়ারে বন্দুক হামলা চালাতে পারে এমন অভিযোগে বৃহস্পতিবার (৬ জুন) বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন তরুণ আশিকুল আলমকে আটক করে দেশটির পুলিশ। তাদের দাবি,বেশকিছুদিন ধরেই তাকে নজরদারিতে রাখা হয়েছিল। আশিকুলের বয়স ২২ বছর। জ্যাকসন হাইটসের বাসিন্দা সে। তার যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন কার্ড রয়েছে।

গ্রেফতারের একদিন পর শুক্রবার ব্রুকলিনের ইউ.এস ডিস্ট্রিক্ট কোর্টে আশিকুলকে হাজির করা হয়। আইনজীবী জেমস ডারো তার মক্কেলকে দুই লাখ ডলার মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার আবেদন জানান। অনুরোধ করেন, কারাগারে না রেখে তাকে গৃহবন্দি করে পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য। ডারো আরও জানান, আশিকুল তার মা-বাবার সঙ্গেই থাকেন এবং তারা বন্ডে স্বাক্ষর করার জন্য প্রস্তুত আছেন। তবে আদালতে সংক্ষিপ্ত শুনানির পর বিচারপতি চেরিল পোলাক আশিকুলকে জামিন না দিয়ে আটক রাখার নির্দেশ দেন। আগামী ২১ জুন সকাল ১১টায় আবারও তাকে আদালতে হাজির করা হবে।

শুক্রবার ব্রুকলিনের ফেডারেল আদালতে দায়েরকৃত অভিযোগ থেকে জানা যায়, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেওয়া দুইটি গ্লক ১৯ আধা স্বয়ংক্রিয় পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে আশিকুলের কাছ থেকে। এরপরই তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এক কর্মকর্তা জানান,আশিকুলকে কড়া নজরদারিতে রাখা হয়েছিলো। একজন গোয়েন্দা ছদ্মবেশে তাকে অনুসরণ করছিলেন। ওই গোয়েন্দার সঙ্গে কথাও হয়েছিল আশিকুলের। দুইজনের সাক্ষাতে সে (আশিকুল) নাইন ইলেভেন হামলাকে সমর্থন জানিয়েছিল। হামলায় সুইসাইড ভেস্ট ও হাতবোমা ব্যবহার নিয়েও আলোচনা করেছিলো সে।

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি রিচার্ড ডোনোঘুয়ে এক বিবৃতিতে জানান, ‘অভিযোগ অনুযায়ী, আশিকুল আলম আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের হত্যা ও টাইমস স্কয়ারে বেসামরিকদের ওপর হামলা পরিকল্পনার অংশ হিসেবে অবৈধ অস্ত্র কিনেছিল।’ সে টাইমস স্কয়ার কিংবা এক মার্কিন সরকারি কর্মকর্তাকে হত্যার জন্য ওয়াশিংটনে হামলার প্রস্তাব দিয়েছিল বলেও উল্লেখ করা হয়েছে অভিযোগে।

দায়েরকৃত অভিযোগ থেকে আরও জানা গেছে, এপ্রিলে পেনসিলভানিয়ায় ছদ্মবেশী ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তার সঙ্গে সাক্ষাৎ হয়েছিল আশিকুলের। সে জানিয়েছিল, হামলার আগে চোখে লেজার চিকিৎসা করাবে যেন সেসময় চশমা পড়তে না হয়। মিডিয়া যেন তাকে ‘অন্ধ সন্ত্রাসী’ নাম না দিতে পারে।

 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।