ব্রেকিং নিউজ

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ১৬টি স্পটে চোরাই তেলের রমরমা ব্যবসা

news-details
ক্রাইম নিউজ

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে বাহুবলের মিরপুর থেকে মাধবপুর পর্যন্ত প্রায় ১৬টি স্পটে বিক্রি হচ্ছে চোরাই তেল। রশিদপুর গ্যাসফিল্ড থেকে অপরিশোধিত ডিজেল বহনকারী ট্যাংকলরি থেকে প্রকাশ্য দিবালোকে ওই সব স্পটে বিক্রি করা হচ্ছে চোরাই তেল।

প্রতিদিন অন্তত শতাধিক তেলবাহী ট্যাংকলরি থেকে পাচারকারী চক্রের সদস্যরা নামমাত্র মূল্যে তেল ক্রয় করে বিভিন্ন হাটবাজারে বিক্রি করছে। আর এতে জড়িত রয়েছে রশিদপুর গ্যাসফিল্ডের অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারী ও গাড়িচালক।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, বাহুবলের মিরপুর তিতারকোনা স্পটে সবচেয়ে বড় তেল পাচারকারী সিন্ডিকেট সক্রিয় রয়েছে। ওই স্পটে তেল পাচার চক্রের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে স্থানীয় যুবলীগ নেতা ফরিদ, রজব আলী, ফারুক ও কালামসহ কয়েক ব্যক্তি। এর অনতিদূরে বশিনা বাসস্ট্যান্ডে কাশেম নামের অপর এক ব্যক্তি তেল পাচার করছে। লস্করপুর রেলগেটে নাজমুল হকসহ তিন-চার ব্যক্তি দোকান খুলে অবৈধভাবে প্রকাশ্যে তেলের বাজার গড়ে তুলেছেন।

হবিগঞ্জের সাবেক পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা নাজমুলসহ তার তিন সহযোগীকে হাতেনাতে আটক করেছিলেন। এ ঘটনায় তারা মাসাধিককাল কারাভোগের পর জামিনে এসে পুনরায় তেলের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন।

একইভাবে শায়েস্তাগঞ্জ-শানখলা রাস্তার মোড়ে মহাসড়কের পাশে আছকির নামে এক ব্যক্তি স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার সহযোগিতায় চোরাই তেলের ব্যবসা জমিয়ে তুলেছেন। সুতাং পুরাসুন্দা রাস্তার মুখে হাবিব ও মাসুক নামের দুই ব্যক্তি ট্যাংকলরি থেকে প্রকাশ্যে তেল নামিয়ে পাচার করছে। এছাড়া অলিপুর, জগদীশপুর, আন্দিউড়া ও মাধবপুর সদরে আরও অন্তত ৬টি স্পটে ট্যাংকলরি থেকে তেল নামানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে শায়েস্তাগঞ্জের তেল পাচারকারী আছকির জানান, তেল পাচারকারীরা স্থানীয় পুলিশকে ম্যানেজ করেই এ ব্যবসা করছেন। তারা শুধু পুলিশই নয় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর আরও একাধিক সংস্থাকে নিয়মিত মাসহারা দিচ্ছেন বলে তিনি জানান। মিরপুর তিতারকোনা স্পটের চোরাই তেল ব্যবসায়ী ফরিদ নিজেকে যুবলীগের একজন সক্রিয় নেতা দাবি করে জানান, বৈধভাবেই তেলের ব্যবসা করছেন তারা। কিন্তু অগ্নিনির্বাপক দফতরের কোনো ছাড়পত্র আছে কিনা জানতে চাইলে ফরিদ জানান, এসব কিছু এখন আর লাগে না। উল্লেখিত স্পট সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, রশিদপুর গ্যাসফিল্ড থেকে অপরিশোধিত তেল নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামে ডিপোতে নিয়ে যাওয়ার পথে প্রকাশ্যে দিবালোকে ট্যাংকলরি থেকে তেল নামানো হচ্ছে। বৃহস্পতিবার মিরপুর তিতারকোনা পেট্রলপাম্প সংলগ্ন এলাকায় একটি তেলবাহী লরি থেকে তেল নামানো হয়। এ সময় স্থানীয় এক সাংবাদিক ট্যাংকলরির ছবি তুলতে গেলে তেল পাচারকারীরা তাকে বাধা দেয়। এ সময় তারা বলে সাংবাদিকরা লিখলে কিছু হবে না।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।