১১ জনের পদ শূন্য ঘোষণা করবে ছাত্রলীগ

news-details
রাজনীতি

আমাদের প্রতিবেদক 

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পাওয়া বিতর্কিতদের বাদ দেওয়ার দাবিতে ছাত্রলীগের একটি অংশ কমিটি প্রকাশের পর থেকেই বিক্ষোভ জানিয়ে আসছে। দলীয় নেতা-কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে প্রাথমিকভাবে ১৯ জনকে চিহ্নিত করেছিল ছাত্রলীগ। সেই তালিকা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ১১ জনের পদ চূড়ান্তভাবে শূন্য ঘোষণা করতে যাচ্ছে সংগঠনটি।

আজ মঙ্গলবার ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, কাল বুধবার ছাত্রলীগের অভিযুক্তদের পদ চূড়ান্তভাবে শূন্য ঘোষণা করা হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরবে ছাত্রলীগ।

পূর্ণাঙ্গ কমিটি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা ও বিক্ষোভের মুখে গত ২৮ মে ‘প্রাথমিকভাবে’ ১৯ জনের পদ শূন্য ঘোষণা করে ছাত্রলীগ। এ বিষয়ে ছাত্রলীগ বলেছে, অভিযোগের ভিত্তিতে পদ শূন্য ঘোষণা করা হয়েছে, কিন্তু অভিযোগগুলো চূড়ান্তভাবে প্রমাণিত হয়নি। ১৯ পদ শূন্য ঘোষণার বিষয়টিকে এক ধরনের ‘বিভাগীয় ব্যবস্থা’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছিলেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, প্রাথমিকভাবে পদ শূন্য হওয়া সেই ১৯ জনের মধ্যে আটজনের ক্ষেত্রে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে ১১ জনের ক্ষেত্রে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছ। তিনি ও সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন আজ মঙ্গলবার রাতে বসবেন। কাল বুধবার পদগুলো চূড়ান্তভাবে শূন্য ঘোষণা করা হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

‘আন্দোলনকারীদের ব্যাপারে অনুসন্ধান চলছে’
গত ২৩ দিন ধরে রাজু ভাস্কর্যে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া নেতা-কর্মীরা। আজ মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর স্মারকলিপি দেওয়ার কথা জানিয়েছেন আন্দোলনরত নেতা-কর্মীরা।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেছেন, রাজু ভাস্কর্যে যাঁরা বসে আছেন, তাঁদের ব্যাপারে অনুসন্ধান চলছে। তিনি তাঁদের বিষয়ে ‘ব্যাপক’ আকারে অভিযোগ পেয়েছেন। অবস্থানরতদের মধ্যে দুই-একজন ছাড়া প্রায় সবাই বিতর্কিত বলে দাবি করেন তিনি। পদবঞ্চিতদের মধ্য থেকে শূন্য পদে পদায়নের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘কমিটিতে পদ যদি শূন্য হয়ও, বিতর্কিত কাউকে তো আমরা নেব না। ’

গোলাম রাব্বানী আরও বলেন, পদবঞ্চিতরা সাংগঠনিক প্রক্রিয়া মেনে একটি লিখিত অভিযোগও তাঁদের কাছে দেননি। তবে সংবাদ সম্মেলনে পদবঞ্চিতরা দাবি করেছেন, সাংগঠনিক প্রক্রিয়ায় অভিযোগ জানাতে গেলে গত ১৯ মে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা তাঁদের ওপর হামলা চালিয়েছিলেন। হামলার এই অভিযোগকে ‘ফালতু কথা’ হিসেবে আখ্যা দেন গোলাম রাব্বানী।

পদবঞ্চিতদের সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে রাব্বানী বলেন, ‘ছাত্রলীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ নেতারা যখন বলেছেন, তাঁদের সঙ্গে ছাত্রলীগের কোনো সম্পর্ক নেই। ফলে রাজু ভাস্কর্যে কারা বসে আছেন, কারা পদবঞ্চিত—আমরা জানি না তাঁরা যা ইচ্ছা করুন, তা নিয়ে আমাদের কোনো মাথাব্যথা নেই।’


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।