কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ছাত্রদলের বিক্ষুব্ধদের ভাঙচুর

news-details
রাজনীতি

আমাদের প্রতিবেদক

বয়সসীমা নির্ধারণ না করে ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে ও ১২ নেতাকে বহিষ্কারের আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলনকারী ছাত্রদলের নেতা–কর্মীরা নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচে ভাঙচুর চালিয়েছেন। 

আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় কাকরাইলের স্কাউট ভবনের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে বহিষ্কৃত ছাত্রনেতাদের নেতৃত্বে বিক্ষুব্ধরা বিএনপি কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থান নেন। এ সময় কার্যালয়ের নিচে দাঁড়িয়ে থাকা ছাত্রদলের বেশ কিছু নেতা–কর্মীকে ধাওয়া দেন বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। তাঁরা কার্যালয়ের নিচের শাটার ও প্রবেশপথে লাথি মারেন।

ধাওয়ার সময় নিচতলায় অবস্থান করা ছাত্রদলের নেতা–কর্মীদের সঙ্গে বিক্ষুব্ধ নেতা–কর্মীদের মারামারিতে মাহবুবুর রহমান নামের একজন বিক্ষোভকারী আহত হয়েছেন।

ভাঙচুরের বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, এ বিষয়ে তাঁর কোনো মন্তব্য নেই। তবে তিনি বলেন, তারিখ অনুযায়ী ১৫ জুলাই সম্মেলন হবে। সেই অনুযায়ী তাঁদের কর্মকাণ্ড চলছে।

ভাঙচুরের বিষয়ে সদ্য বিলুপ্ত ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ইকতিয়ার কবির (বর্তমানে বহিষ্কৃত) অভিযোগ করে বলেন, ভেতরে যাঁরা আছেন, তাঁরা চেয়ার-টেবিল, সিসি ক্যামেরা এগুলো ভেঙেছেন। তাঁরা যখন ভেতরে প্রবেশ করতে গিয়েছিলেন, তখন ভেতরে থাকা নেতা-কর্মীরা তাঁদের দিকে কাপ ছুড়ে মারেন। এতে তাঁদের একজন আহত হয়েছেন।

ছাত্রদলের বহিষ্কৃত নেতা ইকতিয়ার রহমান কবির বলেন, বয়সসীমা তুলে দিয়ে পুনঃ তফসিল না হলে সম্মেলন হতে দেওয়া হবে না। তিনি বলেন, আগামীকালের মধ্যে দাবি আদায় না হলে অনাকাঙ্ক্ষিত যেকোনো ঘটনা ঘটলে তার জন্য সিন্ডিকেট দায়ী থাকবে। ঘোষিত তফসিল বাতিল করে নতুন তফসিলের দাবি জানান তিনি।

দুপুর ১২টার দিকে বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, ‘যারা আন্দোলন করছে, তারা আমাদেরই ছোট ভাই। আমরা আশা করব জ্যেষ্ঠ নেতারা যে তফসিল ঘোষণা করেছেন, তা মেনে নিয়ে তারা আমাদের সহযোগিতা করবে।’


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।