ব্রেকিং নিউজ

কখনোই জনপ্রিয়তার জোয়ারে গা ভাসাইনি: নাদিয়া

news-details
বিনোদন

আমাদের প্রতিবেদক 

'একনাগারে অনেক কাজ করা যায় সত্যি, কিন্তু তা যদি দর্শকদের মনে ছাপ না ফেলে তাহলে কি সেটা অর্থহীন হয়ে যাবে না? এই প্রশ্ন ছুড়ে এটা প্রমাণ করতে চাচ্ছি না যে, ভালো কাজের সংখ্যা কমে গেছে। অভিনয় ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই ভালো চিত্রনাট্য দেখে বেছে বেছে কাজ করার চেষ্টা করেছি। কখনোই জনপ্রিয়তার জোয়ারে গা ভাসাতে চাইনি। এখনও সেটা চাই। এক নিঃশ্বাসে এ কথাগুলো বলে গেলেন অভিনেত্রী নাদিয়া আহমেদ। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে নানা ধরনের গল্প ও চরিত্রে কাজ করে অগণিত দর্শকের হৃদয় কেড়েছেন এই অভিনেত্রী। প্রতিটি নাটক, টেলিছবিতে নিজেকে ভেঙে নতুন করে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন।

গেল ঈদে নাদিয়াকে ছোট পর্দায় তেমন একটা পাওয়া যায়নি। কেন এই দূরে থাকা? 'শিল্পীদের পাশে দাঁড়ানোর কথা চিন্তা করে অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম। প্রচার প্রচারণার জন্য ঈদের কাজ কম করেছি। সবার ভালোবাসার ডানায় ভর করে অভিনয় শিল্পী সংঘের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হয়েছি। শিল্পীদের কল্যাণে কিছু করতে পারব ভেবে ভালোই লাগছে'- বললেন নাদিয়া। নির্বাচিত হওয়ার আগে শিল্পীদের কাছে অনেক প্রতিশ্রুতি ছিল। সেগুলো বাস্তবায়নের কথা কী ভাবছেন?

'সবে তো শপথ নিয়েছি। এখন ধীরে ধীরে এগিয়ে যেতে চাই। আগের কমিটির সাফল্য-ব্যর্থতা যাচাই করে নতুন পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করতে চাই। প্রতিটি সদস্যের মতামতকে যেন গুরুত্ব দেওয়া হয় সেই পরিবেশ তৈরি করব। আমার বিশ্বাস, সবাই মিলে চেষ্টা করলে সফল একটি সংগঠন হয়ে উঠবে অভিনয় শিল্পী সংঘ। সেই সঙ্গে শিল্পীরাও উপকৃত হবেন। আমি মনে করি, নির্বাচিত সদস্য হিসেবে শিল্পী সংঘে অনেক ইতিবাচক পরিবর্তনে ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে। অন্তত সেই চেষ্টাটা করব আমি। সদস্যদের কথাগুলো নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে নিয়মিত পৌঁছাব। এ লক্ষ্যেই নিরলসভাবে কাজ করে যাব।' 

নাদিয়া বাঙালি মেয়ে হলেও তার জন্ম ইরাকে। ইরাকি ভাষায় নাদিয়া শব্দের অর্থ শিশির ভেজা ফুল। যতই দিন যাচ্ছে নাদিয়া নিজেকে শিশির ভেজা ফুলের মতো সতেজ করে তুলছেন। নাটক ও টেলিছবিতে অভিনয়, নাচ, উপস্থাপনা, মডেলিং- সর্বত্র সরব পদচারণা তার। বলা যায়, অভিনয় ক্যারিয়ারে সুসময় যাচ্ছে নাদিয়ার। এ কথাটা বলার পর মনে খটকা লাগল এই ভেবে যে, নাদিয়া তো সবসময় এমন ছিলেন। যেদিন নাটকের শুটিং থাকে, ওই দিন সকাল ৮টায় ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে ছুট দেন শুটিংয়ে। আজ উত্তরা, কাল পুবাইল ও পরশু হোতাপাড়া। তারপর? তারপর সারাদিন লাইট-ক্যামেরা আর অ্যাকশনের মধ্যে থাকতে হয়! আর মাঝে মধ্যে বিরতিতে সহশিল্পীদের সঙ্গে নানা বিষয় নিয়ে চলে খোশগল্প। ঘরে ফিরতে ফিরতে রাত ১০টা। আর খুব বেশি দেরি হলে না হয় ঘড়ির কাঁটা ১২টা ছুঁয়ে যায়। এরপর মেকআপ তুলে রাতের খাবার আর ঘুম। পরদিন শুটিংয়ের জন্য চরিত্রানুযায়ী পোশাক গুছিয়ে নেন।

যত ব্যস্ততাই থাকুক, কোনো নাটকের চিত্রনাট্যে চোখ বুলাতে ভুল করেন না তিনি। এই হলো ব্যস্ত নাদিয়ার ছুটে চলার ফর্দ। শুধু নাটক, টেলিছবির কাজেই নাদিয়ার ব্যস্ত সময় যাচ্ছে, তা কিন্তু নয়। সম্প্রতি প্রথমবারের মতো মিউজিক ভিডিওতে মডেল হলেন নাদিয়া। কণ্ঠশিল্পী বাপ্পা মজুমদারের গাওয়া একটি নজরুল সঙ্গীতের গানে মুখে দেখিয়েছেন তিনি। এ প্রসঙ্গে নাদিয়া বলেন, আগেও বেশকিছু মিউজিক ভিডিওর প্রস্তাব পেয়েছি। কিন্তু কাজ করিনি। তবে এবার বাপ্পাদার কাছ থেকে মিউজিক ভিডিওর আইডিয়াটা শোনার সঙ্গে সঙ্গেই আমি রাজি হয়ে যাই। কারণ, তিনি আমার ভীষণ পছন্দের একজন শিল্পী। আর যে গানের ভিডিওতে অংশ নিয়েছি, সেটিও আমার দারুণ পছন্দের। সব মিলিয়ে সুযোগটা হাতছাড়া করতে চাইনি। সম্প্রতি নজরুলের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে গানটি প্রকাশ হয়েছে। 

পাশাপাশি রান্নার ওপর ভিত্তি করে চ্যানেল আইয়ের রিয়েলিটি শো 'রূপচাঁদা সুপার শেফ'-এর উপস্থাপনা করছেন তিনি। উপস্থাপনার অভিজ্ঞতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রান্না যে একটা শিল্প, সেটাকে পেশা হিসেবে নেওয়া এবং রান্নায় আগ্রহী অন্যদের কীভাবে অনুপ্রাণিত করা যায়, সেটাই এই অনুষ্ঠানে আমরা তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। বাড়তি চমক হিসেবে থাকছেন রন্ধনশিল্পে সুপ্রতিষ্ঠিত দেশ-বিদেশের অতিথি বিচারকরা। মোট ১৫টি পর্বের এই শোটি এগিয়ে যাবে নানারকম রান্নার চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে। দেশি রান্নাকে ভিত্তি করেই এগোবে পর্ব। 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।