নন্দীগ্রাম সাব-রেজিস্ট্রি অফিস : প্রতিদিন ২ লাখ টাকা 'ঘুষ-বাণিজ্য'

news-details
দেশজুড়ে

বগুড়া প্রতিনিধি

বগুড়ার নন্দীগ্রাম সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে উৎকোচ গ্রহণ বন্ধসহ সাব-রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ স্থানীয় বাসস্ট্যান্ডে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এরপর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে আইনমন্ত্রী এবং জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

আইনমন্ত্রী, জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে প্রেরিত স্মারকলিপিতে বলা হয়, নন্দীগ্রাম উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিসের সাব-রেজিস্ট্রার মো. নাজমুল হক সাধারণ মানুষদের জিম্মি করে দলিলপ্রতি অবৈধভাবে তিন হাজার টাকা উত্তোলন করে আসছে। কেউ এর প্রতিবাদ করলে সাব-রেজিস্ট্রারের কথিত দলিল লেখক ক্যাডারদের দ্বারা শারীরিক এবং মানসিকভাবে হেনস্তা করা হয়। যে কারণে সাধারণ মানুষ প্রতিবাদ করার সাহস পর্যন্ত হারিয়ে ফেলেছে।

বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে ৭০-৮০টি দলিল রেজিস্ট্রি হয়। সে অনুযায়ী প্রতিদিন ২ লাখ টাকার ওপরে চাঁদা উত্তোলন করা হয়। এই চাঁদার টাকা প্রতিনিয়ত ভাগবণ্টনও করা হয়। ফলে অবৈধ টাকা পেয়ে অনেকেই মাদকাসক্ত হয়ে পড়ছে। ফলে সমাজে এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। একই সঙ্গে এই উৎকোচ আদায়কে কেন্দ্র করে দ্বিধাবিভক্ত দলিল লেখকদের মধ্যে যেকোনো মুহূর্তে বড়ধরনের সংঘাত-সংঘর্ষের আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

সাব রেজিস্ট্রার মো. নাজমুল হক এর সাথে মোবাইলে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন, আমি এ বিষয়ে ফোনে কথা বলতে রাজি নই বলেই ফোন কেটে দেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. শারমিন আখতার বলেন, স্মারকলিপি পেয়েছি। তদন্তসাপেক্ষে বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।