রাবি ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও মারধরের অভিযোগ

news-details
শিক্ষা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) মতিহার হলের এক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে এক ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে ৫ হাজার টাকা চাঁদা দাবি ও মারধরের  অভিযোগ উঠেছে। গত শনিবার দুপুরে হলের প্রথম ব্লকের হলের ২২৩ নম্বর কক্ষে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতার নাম তারেক আহমেদ খান শান্ত। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক। ভুক্তভোগী নাম আনাস আহমেদ। ইতিহাস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি মতিহার হলের প্রথব ব্লকের ২১২ নাম্বার রুমে থাকেন। এ ঘটনার পর নিজের জীবনের শঙ্কার কথা উল্লেখ করে তিনি মতিহার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে বলে জানিয়েছেন।  

ভুক্তভোগী আনাসের অভিযোগ, তার কাছ থেকে চাঁদা দাবি করে ছাত্রলীগ নেতা শান্ত তার নিজ কক্ষে ডেকে চোখ বেঁধে শরীরের বিভিন্ন স্থানে রড দিয়ে আঘাত করে একটি মোবাইল ফোন, সোনার চেইন হাতিয়ে নিয়েছে। 

ভুক্তভোগী আনাস আহমেদ বলেন, ‘কিছুদিন যাবত তিনি (শান্ত) আমার কাছে পাঁচ হাজার টাকা দাবি করে আসছে। কিন্তু আমি টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় আমাকে ২২৩ নম্বর কক্ষে ডেকে দরজা বন্ধ করে দিয়ে আমাকে খারাপ ভাষায় গালাগালি এবং হুমকি দেয়। একপর্যায়ে আমার চোখ বেঁধে কয়েকজন মিলে আমাকে মারতে থাকে। আমি কিছুই দেখতে পায়নি। একপর্যায়ে আমার গলার চেইন এবং কাছে থাকা মোবাইল ফোন নিয়ে চলে যায়। আমি ব্যাথায় চিৎকার করতে থাকলে পাশের রুম থেকে কয়েকজন এসে আমাকে চোখ খুলে দেয়। তারপর আমি আমার বিভাগের বড় ভাইয়ের সহায়তায় মেডিকেলে আসি।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যপক লুৎফর রহমান বলেন, “বিষয়টি আমি একটি মাধ্যমে শুনেছি কিন্তু ভুক্তভোগী আমাকে কিছুই জানায়নি। আর বিষয়টি শোনার পর আমি হল প্রাধ্যক্ষ কে ফোন করে জানিয়েছে সুষ্টু তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য। 

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, “মতিহার হল ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মীর সাথে আমাদের কর্মী আনাস তাদের বড় ভাইদের সাথে একটা বিষয় নিয়ে বেয়াদবি করার কারণে একটু বকাঝকা করছে আর কি। তাছাড়া এটা কোন বিষয় না। তবে ফোন, চেইন নেয়া বা চাঁদাদাবির বিষয়টি আমি জানি না।”

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।