এবার হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠেনি : হাব

news-details
জাতীয়

আমাদের প্রতিবেদক

চলতি বছর প্রায় ৬০ হাজার হজযাত্রীর সৌদি ইমিগ্রেশন ঢাকায় করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম।

তিনি বলেন, আগামী বছর অধিকাংশ হজযাত্রী প্রি-অ্যারাইভাল ইমিগ্রেশন সুবিধা পাবেন। তবে সিলেট ও চট্টগ্রাম বিমানবন্দর থেকে যারা হজে যাবেন তারা ব্যতিক্রম।

সোমবার দুপুর ১২টায় রাজধানীর আশকোনা হজক্যাম্পে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন তিনি।

শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, এবছর হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে কোনো অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ ওঠেনি। স্মরণকালের সফল হজ ব্যবস্থাপনা সম্পন্ন হয়েছে। রোববার (৪ আগস্ট) ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনে চলাকালে চারজন যাত্রী জানিয়েছিলেন, তারা হজে যেতে পারছেন না, নামের বিভ্রাটের কারণে তাদের সমস্যা হয়েছিল। আমরা ইতোমধ্যে সৌদি এয়ারলাইন্সের সঙ্গে যোগাযোগ করে সমাধানের চেষ্টা করছি। আশা করি তারাও যেতে পারবেন।

হাব সভাপতি বলেন, অসুস্থতা কিংবা ব্যক্তিগত কারণে ২২২ জন হজযাত্রী বিভিন্ন কারণে যাচ্ছেন না। কোনো এজেন্সির কারণে যদি হজযাত্রীরা বিড়ম্বনার শিকার হন, তাহলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। হাবেরও সদস্যপদ থাকবে না। হজ ব্যবস্থাপনা আরও নিখুঁতভাবে পরিচালনা করতে চাই।

শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, কোনো এজেন্সি যদি প্রতারণা করে, তাহলে কোনোভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না।

কোনো দালালের মাধ্যমে যাতে কোনো হজযাত্রী টাকা না দেন। এজেন্সির মাধ্যমে ও ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে নিবন্ধন করলে কেউ যদি প্রতারণা করে, তাহলে তাদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হয়। তাই আগামী বছর যারা হজে যেতে ইচ্ছুক তাদের বলবো, আপনারা পুরোপুরি দালাল পরিহার করবেন।

তিনি আরও জানান, মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) হজের সবশেষ ফ্লাইট। এর মাধ্যমে এবার হজযাত্রা শেষ হবে।

সংবাদ সম্মেলনে হাবের কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।