ব্রেকিং নিউজ

চাঁদপুরে ইমামের কক্ষ থেকে তিন মাদ্রাসাছাত্রের লাশ উদ্ধার

news-details
দেশজুড়ে

চাঁদপুর প্রিতিনিধি

৫ বছরের শিশু সন্তানকে রেখে নামাজ পড়াতে যান  মসজিদের মাম মাওলানা জামাল উদ্দিন। ওই শিশু সন্তানের সাথে আরো ২ জন কিশোর প্রবেশ করে ইমামের রুমে।

মসজিদ সংলগ্ন রুম থেকে শুক্রবার বেলা ১২টার পর জুমার নামাজ পড়াতে মসজিদে ঢোকেন জামাল উদ্দিন। নামাজ শেষে ইমাম নিজ রুম ভেতর থেকে আটকানো দেখতে পান। তিনি রুমের জানালা দিয়ে দেখেন তার ছেলেসহ আরও দুই ছেলে খাটের ওপর পড়ে আছে। 

অনেক ডাকাডাকির পর দরজা না খোলায় দরজা ভেঙ্গে ইমামসহ উপস্থিত মুসল্লিরা দেখেন রুমের মধ্যে ৩ শিশু-কিশোর অচেতন অবস্থায় পড়ে আছে। এদের দুজন মারা গেছে সেখানেই। একজনকে মতলব হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকেও মৃত ঘোষণা করে।

নিহতরা হলো—মসজিদের ইমাম বরগুনার জামাল উদ্দিনের ছেলে আব্দুল্লাহ (৮), মতলবের দশপাড়া এলাকার নূরানি তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র ইব্রাহিম (১২) এবং মতলবের নলুয়া এলাকার জসিম উদ্দিনের ছেলে ও চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র রিফাত হোসেন (১৫)।

ঘটনাটি ঘটেছে চাঁদপুরের মতব দক্ষিণ উপজেলার পূর্ব কলাদী গ্রামে। ওই গ্রামের জামে মসজিদে ইমাম মাওলানা জামাল উদ্দিন। তার শিশু সন্তান আব্দুল্লাহস আল নোমান (৫) পিতার সাথেই মসজিদ সংলগ্ন রুমে থাকতো। তাদের বাড়ি বরগুনা জেলায়। শিশু সন্তান নোমানকে রুমে রেখেই মসজিদে  যান জামাল উদ্দিন। যাওয়ার সময় দুই কিশোর ইব্রাহিম ১২), রিফাত হোসেনকে (১৫) ঢুকতে দেখেন। ইব্রাহিম ও রিফাত পার্শ্ববর্তী মতলব দক্ষিণের ভাঙ্গাপাড় মাদরাসায় পড়ে।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চাঁদপুরের পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির পিপিএম, মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ সহ ফোর্স।

মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) স্বপন কুমার আইচ জানান,এখনই সব কিছু বলা যাবেনা।আগে ময়না তদন্ত হোক।তবে এখনো কেউ গ্রেফতার হয়নি।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।