ব্রেকিং নিউজ

৭ কারণে পান করুন ‘হলুদ চা’

news-details
লাইফস্টাইল

লাইফস্টাইল ডেস্ক

চায়ের কথায় ঘন লিকারের দুধ চায়ের কথা মাথায় আসলেও, সুস্বাদু এই চা পানে তেমন কোন স্বাস্থ্য উপকারিতা পাওয়া যাবে না।

সেদিক থেকে গ্রিন টি বেশ উপকারী। গ্রিন টিয়ের মতোই আরেকটি উপকারী চা হলো টারমারিক টি তথা হলুদ চা। হলুদ গুঁড়ায় তৈরি এই চা থেকে হলুদের চমৎকার স্বাস্থ্য উপকারিতাগুলো সরাসরি শরীরে প্রবেশ করবে এবং তার কার্যকারিতাও পাওয়া যাবে দ্রুত।

গরম পানিতে আধা চা চামচ পরিমাণ হলুদ গুঁড়া, ১/৪ চা চামচ দারুচিনি গুঁড়া ও আধা চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে তৈরি করতে হবে এই হলুদ চা। কীভাবে চা তৈরি করবেন সেটা তো জানিয়ে দেওয়া হলো, এবারে জেনে নেন উপকারী এই চায়ের ৭টি দারুণ উপকারিতা, যে কারণে এই চা নিত্যদিন পান করা প্রয়োজন।

নিয়ন্ত্রণে রাখবে ওজন
বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত হলুদ গুঁড়ায় তৈরি চা পান করলে শরীরে কার্কিউমিন নামক উপাদানের উপস্থিতি পাওয়া যায়, যা শরীর থেকে টক্সিক উপাদান বের করে দেয়।

দৃষ্টিশক্তি উন্নতিতে সাহায্য করে
দৃষ্টি ক্ষমতা বৃদ্ধিতে বাস্তবিক অর্থেই টার্মারিক টি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। হলুদে থাকা বেশ কিছু উপকারি উপাদান রেটিনার ক্ষমতা অক্ষুণ্ণ রাখার পাশাপাশি চোখে প্রোটিনের মাত্রা বৃদ্ধির সমস্যা প্রতিরোধেও কাজ বিশেষত যাদের দিনের মধ্যে ৮-৯ ঘন্টা কম্পিউটারের সামনে বসে কাজ করতে হয়, তাদের নিয়মিত হলুদ গুঁড়ায় তৈরি চা পান করা প্রয়োজন।

রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়
হলুদে থাকা কার্কিউমিন রক্তের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়, ফলে স্বাভাবিভাবেই হৃদরোগের সম্ভাবনা হ্রাস পায়। রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা যত কম থাকবে, হৃদরোগের সম্ভাবনাও কমে যাবে। ফলে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকিও কমে যায়।

প্রতিরোধ করবে ক্যানসার
সাম্প্রতিক সময়ে প্রকাশিত একটি রিপোর্টের তথ্যানুসারে হলুদ গুঁড়ায় উপস্থিত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান শরীরে ক্যানসার কোষ জন্মাতে বাধাদান করে।

বৃদ্ধি করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা
নানাবিধ পুষ্টিকর উপাদান সমৃদ্ধ হলুদ গুঁড়ায় তৈরি চা পানে শরীরের রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় পূর্বের তুলনায় বেশ অনেকটা। এর ফলে হুটহাট রোগবালাই বা ঠাণ্ডা, জ্বর, কাশি-সর্দির সমস্যা দেখা দেয় না সহজে।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়
নিয়মিত হলুদ চা পানে ত্বক ভেতর থেকে পুষ্টি ও উপকারিতা পায়। যার প্রভাবে ত্বকের ছোট-বড় স্কিন ডিজিজ দেখা দেওয়ার প্রকোপ কমে যায় অনেকটা। শুধু তাই নয়, একজিমার মতো ত্বকের রোগের চিকিৎসাতেও এই বিশেষ পানীয়টি সাহায্য করে থাকে।

খাদ্য হজমে সাহায্য করে
হজমজনিত সমস্যা দূরে রাখতে নিয়ম করে হলুদ চা পান করা উচিত। কারণ হলুদ পাকস্থলিতে উপস্থিত উপকারি ব্যাকটেরিয়ার শক্তি বৃদ্ধিতে অবদান রাখে, ফলে বদহজমের সমস্যা কমে আসে এবং পাকস্থলিস্থ খাবার দ্রুত হজম হয়।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।