ব্রেকিং নিউজ

আওয়ামী লীগ- যুবলীগ নেতারাই ক্যাসিনো চালাচ্ছে : মির্জা ফখরুল

news-details
রাজনীতি

আমাদের প্রতিবেদক

রাজধানীতে আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতারাই ক্যাসিনো চালাচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, দুর্নীতিতে দেশ ছেয়ে গেছে, এটা প্রমাণিত।

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে যুবদলের মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সারা বাংলাদেশে এখন আওয়ামী লীগের লোকেরাই, যুবলীগের নেতারা, ছাত্রলীগের নেতারা প্রমাণ করছে এই বাংলাদেশের সম্পদ তারা লুট করে নিয়ে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘একটা কথা আছে, ধর্মের কল বাতাসে নড়ে। আজকে আওয়ামী লীগের যে দুঃশাসন, দুর্নীতি ও নির্যাতন করছে- এটা এখন আর অন্য কাউকে বলতে হচ্ছে না। নিজেরাই নিজেদের বাতাসে নড়তে শুরু করেছে।’ 

তিনি আরো বলেন, ‘পত্রিকায় এসেছে, ঢাকায় ৬০টি ক্যাসিনো। আর এগুলো চালাচ্ছে, আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতারা। আজকে নিজেরা ধরা খেয়ে অন্যদের দোষ ধরতে চায়। কারণ আজকে ভয় খেয়ে গেছে। আর এসবে সরকার ও আওয়ামী লীগ মদদ দিচ্ছে।’

দেশজুড়ে আওয়ামী লীগের দুঃশাসন চলছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে সবচেয়ে খারাপ ব্যক্তিদের নিয়োগ দিয়ে তারাও লুটপাট চালাচ্ছে। সরকারের অপকর্মে বাংলাদেশ আজ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে।’

যুবদলের কর্মসূচিতে বক্তব্য দিতে গিয়ে আসামে নাগরিকপঞ্জি পাস করার প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আসামে যা হোক তাতে আমাদের কোনো বাধা ও মাথা ব্যথা নেই। কিন্তু যখন তাদের মন্ত্রীরা বলেছেন, এরা বাংলাদেশি। এদেরকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। তখন নিশ্চিয়ই এটা আমাদের সমস্যা কয়ে দাঁড়ায়। আমরা পরিষ্কার করে বলেছি, ১৯৭১ সালের পরে আমাদের কোন মানুষ ভারতে যায়নি। কেনো যাবে? আমরা অর্থনৈতিক দিক থেকে ওদের চেয়ে অনেক ভালো আছি। আমাদের লোক ভারতে যাওয়ায় প্রশ্নই উঠতে পারে না। কিন্তু কথাগুলো যখন বলে তখন তো আমাদের চিন্তিত হতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘আমরা কারো অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাতে চাই না। কিন্তু আমরা উদ্বিগ্ন। কারণ এবিষয়ে বাংলাদেশের সরকার এখন পর্যন্ত কোন কথা বলছে না। তবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এটা ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়। কিন্তু ভারতের নেতারা যে বলছেন, বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। সে সম্পর্কে একটা ব্যাখ্যা তো দিতে হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত তারা দিচ্ছে না।’

এসময় তিনি সংসদ বাতিল করে ও নির্বাচন কমিশনকে সরিয়ে নতুনভাবে নির্বাচন করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

সংগঠনের সভাপতি সাইফুল আলম নীরবের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকুর সঞ্চালনায় বিএনপির সহযোগি বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজ, যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি মোস্তাজুল করিম বাদরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম নয়ন, সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন হাসান, যুবদল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম মিল্টন, যুবদল দক্ষিণের সভাপতি রফিকুল আলম মঞ্জু, সাধারণ সস্পাদক গোলাম মাওলা শাহীন প্রমুখ বক্তব্য দেন।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।