ব্রেকিং নিউজ

পার্বত্য চট্টগ্রামে রক্তের হোলি খেলা আর দেখতে চাই না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

news-details
জাতীয়

 রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, 'সারা দেশের মতো পার্বত্য চট্টগ্রামেও আইনশৃংখলা রক্ষা ও শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সরকার বদ্ধ পরিকর। এখানে আমরা আর রক্তের হোলি খেলা দেখতে চাই না। এটি অত্যন্ত সম্ভাবনাময় এলাকা। কি নেই পার্বত্য এলাকায়! রক্তের হোলি খেলা বন্ধ করে আসুন আমরা সবাই মিলে এ তিন পার্বত্য জেলাকে সমানতালে এগিয়ে নিয়ে যাই দেশের অন্য স্থানের মতো।'

বুধবার খাগড়াছড়ির রামগড়ে নবনির্মিত থানা ভবনের উদ্বোধন শেষে স্থানীয় সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথাগুলো বলেন। এ সময় তিনি বলেন, 'পার্বত্য এলাকার মানুষ যেন সুন্দরভাবে বসবাস করতে পারে, ব্যবসা বাণিজ্য করতে পারে, সেজন্যই এখানে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী রয়েছে।'

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, 'দেশে সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদকে কঠোর হাতে দমন করা হয়েছে। জলদস্যু ও চরমপন্থিরা আত্মসমর্পন করে স্বভাবিক জীবন যাপন করছে। পার্বত্য চট্টগ্রামেও কেউ নিজেদের কৃতকর্মের ভুল স্বীকার করে যদি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চায়, আমরা স্বাগত জানাবো।'

পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্ত্রাস বিরোধী অভিযান পরিচালনার দাবির প্রেক্ষিতে মন্ত্রী বলেন, 'বৃহষ্পতিবার রাঙ্গামাটিতে হেডম্যান, কারবারিসহ সকল জনপ্রতিনিধি, সুশীলসমাজ, প্রশাসন সবাই নিয়ে বৈঠক হবে। সকলের পরামর্শ ও মতামত নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন।'

খগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মোহা. আহমার উজ্জামানের সভাপতিত্বে এ সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন খাগড়াছড়ির এমপি ও শরণার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্সের চেয়ারম্যান (প্রতিমন্ত্রী পদমর্যাদা) কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, তিন পার্বত্য জেলার সংরক্ষিত আসনের মহিলা এমপি মিজ বাসন্তি চাকমা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধূরী, চট্টগ্রামের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন রামগড় উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা, পৌরসভার মেয়র মেহাম্মদ শাহ জাহান কাজী রিপন, সাবেক জেলা পরিষদের সদস্য মংপ্রু চৌধুরি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক কাজী নুরুল আলম আলমগীর।

সমাবেশের আগে থানা ভবনের উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম ও গুইমারা রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. শাহরিয়ার জামান।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।