ব্রেকিং নিউজ

চার শতাধিক ব্যাংক অ্যাকাউন্টের লেনদেনের তথ্য চেয়েছে দুদক

news-details
জাতীয়

আমাদের প্রতিবেদক

অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে অবৈধ সম্পদের মালিক হওয়া ব্যক্তিদের ধরতে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে চার শতাধিক ব্যাংক হিসাবের লেনদেনের তথ্য চেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। অন্যদিকে বিআরটিএ থেকে গত পাঁচ বছরে বা ক্ষমতাসম্পন্ন যেসব ব্যক্তি মালিকানাধীন গাড়ির নিবন্ধন দেওয়া হয়েছে তার তথ্য চেয়ে ফের চিঠি দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বুধবার বিআরটিএ চেয়ারম্যানের কাছে পাঠানো দুদক মহাপরিচালক (বিশেষ তদন্ত) সাঈদ মাহবুব খানের সই করা চিঠিতে এসব গাড়ির তথ্য চাওয়া হয়েছে বলে কমিশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন। চিঠিতে বলা হয়, বিগত পাঁচ বছরে বিআরটিএ কর্তৃক রেজিস্ট্রেশনকৃত ২৫০০ বা তদূর্ধ্ব অশ্বশক্তি সম্পন্ন ব্যক্তিমালিকানাধীন প্রাইভেটকার   বা জিপ গাড়ির তালিকা সংযুক্ত ছক মোতাবেক পাঠানো জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

এর আগে গত ২৫ সেপ্টেম্বর দুদকের তৎকালীন মহাপরিচালক (বিশেষ তদন্ত) আ ন ম ফিরোজ এবং গত বছরের ২৮ জুন তৎকালীন মহাপরিচালক (বিশেষ তদন্ত) মোহাম্মদ জয়নুল বারী একই অনুরোধ করে বিআরটিএর চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়েছিলেন বলে প্রণব কুমার জানান। তিনি বলেন, এর আগে বিআরটিএকে দুবার চিঠি দেওয়া হয়েছিল, ওই দুই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে তারা আংশিক তথ্য দিয়েছে। এবার আমরা আশা করব সম্পূর্ণ তথ্য তারা সরবরাহ করবে।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে চার শতাধিক ব্যাংক অ্যাকাউন্টে লেনদেনের তথ্য চেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। সংস্থাটি বলছে, গত মাসে ঢাকার ক্রীড়া ক্লাবগুলোতে পুলিশ-র‌্যাবের অভিযানে ক্যাসিনো চালানোর বিষয়টি ধরা পড়ার পর চলমান ‘শুদ্ধি অভিযানের’ অংশ হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট-বিএফআইইউ চার শতাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করেছে খবর এসেছে। এগুলোর লেনদেন সংক্রান্ত তথ্য চেয়ে বুধবার দুদকের মহাপরিচালক (বিশেষ তদন্ত) সাঈদ মাহবুব খান বিএফআইইউর মহাব্যবস্থাপককে চিঠি পাঠিয়েছেন বলে দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন।

চিঠিতে বলা হয়, চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে দুর্নীতি দমন কমিশনে বিভিন্ন ব্যক্তির বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি, ঘুষ, সরকারি অর্থ আত্মসাৎ ও অবৈধ সম্পদ অর্জন সংক্রান্ত অনুসন্ধান-মামলা চলমান রয়েছে।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য সূত্রে জানা যায় যে, বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) চলমান দুর্নীতিবিরোধী অভিযান শুরু থেকে এখন পর্যন্ত চার শতাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব জব্দ করা হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশনের চলমান অনুসন্ধান ও মামলাসমূহের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য জব্দকৃত হিসাবসমূহের বিবরণীসহ প্রকৃত অর্থ লেনদেন সংক্রান্ত তথ্য পর্যালোচনা করা আবশ্যক।

দুদকের সুষ্ঠু অনুসন্ধান ও তদন্তের স্বার্থে জব্দ করা ওই চার শতাধিক ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক হিসাব বিবরণী ও প্রকৃত আর্থিক লেনদেনের তথ্য জরুরি ভিত্তিতে সরবরাহ করার জন্য চিঠিতে অনুরোধ জানিয়েছেন দুদক মহাপরিচালক সাঈদ মাহবুব খান।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।