ব্রেকিং নিউজ

তিন সপ্তাহে সৌদি থেকে ফিরলেন ২৬১৫ বাংলাদেশি

news-details
জাতীয়

ডেস্ক রিপোর্ট 

সৌদি আরব থেকে ধরপাকড়ের শিকার হয়ে আরও ১২৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত ১১টা ২০ মিনিটে সৌদি এয়ারলাইন্সের এসভি ৮০৪ বিমানযোগে দেশে ফেরেন তারা। এ নিয়ে নভেম্বরের তিন সপ্তাহে দুই হাজার ৬১৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরলেন।

বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্ক ও ব্র্যাকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের গত ১০ মাসে সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন ২১ হাজার বাংলাদেশি।
 
শুক্রবার রাতে ফেরা নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের আফজাল (২৬) মাত্র আড়াই মাস আগে ৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা খরচ করে সৌদি আরব যান। ভাগ্য এতটাই খারাপ যে, রুম থেকে বের হয়েছিলেন বাজার করার জন্য কিন্তু পথ থেকে তাকে ধরে দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। আকামাও ছিল আফজালের।

আফজালের মতো ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কামরুলও চার লাখ ৬০ হাজার টাকা খরচ করে আড়াই মাস আগে সৌদি গিয়েছিলেন। কিন্তু তাকেও দেশে ফিরতে হয়েছে শূন্য হাতে। দুই বছর ধরে সেলুনে কাজ করতেন কুমিল্লার নন্দন কুমার। আকামার মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই নিয়োগকর্তাকে সাড়ে ছয় হাজার রিয়াল দিয়েছিলেন কিন্তু আকামা করে দেওয়া হয়নি তাকে। পুলিশের হাতে নন্দন গ্রেপ্তার হলে নিয়োগ কর্তাকে ফোন দিলেও দায়িত্ব নেননি। ফলে তাকেও শূন্য হাতে দেশে ফিরতে হয়েছে।

একই পরিস্থিতির শিকার হয়ে দেশে ফিরেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মন্টু মিয়া ও সাইদুল ইসলাম, নরসিংদীর নাইম, হবিগঞ্জের ফারুক হোসেন ও ঢাকার সাইফুল ইসলাম।
 
দেশে ফেরা কর্মীদের অভিযোগ, আকামা তৈরির জন্য কফিলকে (নিয়োগকর্তা) টাকা প্রদান করলেও তিনি আকামা তৈরি করে দেয়নি। পুলিশের হাতে গ্রেপ্তারের পর কফিলের সঙ্গে যোগাযোগ করলেও গ্রেপ্তার হওয়া কর্মীদের কোনো দায়-দায়িত্ব নেয়নি। বরং কফিল প্রশাসনকে বলেছেন, ক্রুশ (ভিসা বাতিল) দিয়ে দেশে পাঠিয়ে দিতে।

এদিকে বরাবরের মতো শুক্রবারও ফেরত আসা বাংলাদেশিদের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহযোগিতায় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম থেকে খাবার-পানিসহ নিরাপদে বাড়ি পৌঁছানোর জন্য জরুরি সহায়তা প্রদান করা হয়।

ব্র্যাক অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান জানান, চলতি বছর এখন পর্যন্ত ২২ হাজার বাংলাদেশিকে সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠানো হয়েছে। চলতি মাসের তিন সপ্তাহে ২৬১৫ জন ফিরেছেন। প্রায় সবাই খালি হাতে ফিরেছেন। যারা কয়েক মাস আগে গিয়েছিলেন তাদের কেউই খরচের টাকা তুলতে পারেননি। তারা সবাই ভবিষ্যৎ নিয়ে এখন দুশ্চিন্তায়।
 
শরিফুল হাসান বলেন, ‘আমরা আশা করছি তিন দিন পর সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের যে যৌথ বৈঠক হবে সেখানে নারীকর্মীদের পাশাপাশি পুরুষদের বিষয়েও আলোচনা হবে। বিশেষ করে ফ্রি ভিসার নামে প্রতারণা বন্ধ করতে দু’দেশকেই কাজ করতে হবে।’

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।