মাদরাসাছাত্রী রাফিকে আগেও চুন ছুড়ে মারা হয়েছিলো

news-details
দেশজুড়ে

।। ফেনী প্রতিনিধি ।। 

পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে এর আগেও একবার হামলার শিকার হয়েছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জানা গেছে, ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে তার শরীরে চুন ছুড়ে দেওয়া হয়েছিলো। তখন পুলিশ ও সংবাদকর্মীরা খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করেছিলো।

যদিও পরে আর ওই ঘটনায় মামলা হয়নি ছাত্রীর পরিবারের অনাগ্রহের কারণেই। এবারে আগুনের ঘটনার পর আগের ঘটনার সন্দেহভাজন ব্যক্তিকেও আসামি করা হয়েছে।

পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা মামলার এজহারভুক্ত এক নম্বর আসামি ও সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ উদ দৌলার ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। 

এদিকে সোনাগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)- কে প্রত্যাহার করেছে পুলিশ সদর দপ্তর। এই ঘটনার মামলায় অভিযুক্ত অধ্যক্ষর শ্যালিকার মেয়েকে মঙ্গলবার রাতে আটক করেছে পুলিশ। এ নিয়ে এই ঘটনায় মোট নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

আজ বুধবার দুপুরে সোনাগাজী থানার ওসিকে প্রত্যাহার করে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন বা পিবিআইয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে, জানিয়েছে পুলিশ সদর দপ্তর।

ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইন্সটিটিউটে লাইফ সাপোর্টেই আছেন ওই মাদ্রাসা ছাত্রী। সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকদের পরামর্শে সোমবার তার একটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এছাড়া আগামী রবিবার সিঙ্গাপুর থেকে চিকিৎসকদের একটি দল ঢাকায় আসবেন আগের একটি কর্মসূচিতে অংশ নিতে। তখন তারা ওই মাদ্রাসা ছাত্রীর চিকিৎসাও পর্যবেক্ষণ করবেন।

এর আগে সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকদের সাথে ভিডিও কনফারেন্সের পর ডা. সামন্ত লাল সেন জানিয়েছিলেন যে মাদ্রাসা ছাত্রীর অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়াতে তাকে সিঙ্গাপুর নেওয়া যাচ্ছেনা।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।