সেন্টমার্টিনে বিজিবি মোতায়েনে খুশি পর্যটক ও স্থানীয়রা

news-details
জাতীয়

 ।। নিজস্ব প্রতিবেদক ।। 

দীর্ঘ ২২ বছর পর সেন্টমার্টিনে বাংলাধেশের সব থেকে দক্ষিণের সমূদ্রের বুকে ভাসমান অপার সৌন্দর্যের দ্বীপে গেল ৭ মার্চ পুনরায় মোতায়েন করা হয়েছে বিজিবি। সাধারণ মানুষসহ পর্যটকরাও খুশী বিজিবি মোতায়েনে।
 
বাংলাদেশের মূল ভূখণ্ড থেকে পানি পথে ১২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত সেন্টমার্টিন দ্বীপ, যার দূরত্ব মিয়ানমার থেকে মাত্র ৮ কিলোমিটার। 

সবথেকে বড় সমস্যা হলো বাংলাদেশের এই দ্বীপটিতে যেতে নাব্যতা আর জোয়ার ভাটার কারণে নির্ভর করতে হয় প্রকৃতির খেয়ালের উপর।  

সম্প্রতি মিয়ানমারের মানচিত্রে সেন্টমার্টিনকে নিজেদের দাবিকরা এবং দ্বীপটিতে মাদক চোরাচালান মানবপাচার সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড রুখতে পুনরায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ায় এর নিরাপত্তা রক্ষায় রয়েছে নানা প্রতিকূলতা। তবে, বিজিবি বলছে সব প্রতিকূলতা পেরিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করবেন তারা।

পর্যটক ও স্থানীয়রা সাধুবাদ জানিয়েছেন সরকারের এই পদক্ষেপকে। সমূদ্রে নিয়মিত টহলে নিরাপত্তাহীনতা দূর হয়েছে বলেও জানান স্থানীয়রা। 

এই দ্বীপের চারপাশে সমূদ্র সৈকত থাকাকে বড় চ্যালেন্জ বলে মনে করছেন লে. ক. মোস্তাফিজুর রহমান। জানান স্থায়ী বিওপি নির্মানের প্রক্রিয়া চলছে।

স্থায়ী বিওপি নির্মাণ না হলেও চলছে টহল তবে কৌশলগত কারণে কি পরিমাণ বিজিবি মোতায়েন হয়েছে তা বলেননি এই কর্মকর্তা।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।