ব্রেকিং নিউজ
  1. যারা কম আসন পেয়ে মন খারাপ করে সংসদে আসছেন না, তারা রাজনৈতিকভাবে ভুল করছেন : সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা; তাদেরকে সংসদে যোগ দেওয়ার আহ্বান
  2. রাজধানীর বনানীর রেইনট্রি হোটেলে নারী নির্যাতন মামলার আসামি সাফাত আহমেদের জামিন নামঞ্জুর, কারাগারে প্রেরণ
  3. ৪ ঘণ্টার চেষ্টায় সোহরাওয়ার্দী মেডিকেলের আগুন নিয়ন্ত্রণে, ১২শ রোগীকে অন্যত্র স্থানান্তর
  4. রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৪৪
  5. ইলিয়াসপত্নীর শারীরিক অবস্থার উন্নতি
  6. কক্সবাজারের টেকনাফে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ১০২ জন ইয়াবা ব্যবসায়ীর আত্মসমর্পণ, সাড়ে তিন লাখ পিস ইয়াবা ও ৩০টি আগ্নেয়াস্ত্র জমা
  7. বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ প্যাকেজ ঘোষণা; কোরবানি ছাড়া খরচ ৩ লাখ ৪৫ হাজার ৮০০ টাকা; হজে যাবেন ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন : হাব
  8. মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকার জন্য জামায়াত ক্ষমা চাইলেও যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কাজ বন্ধ হবে না : ওবায়দুল কাদের

অনলাইনে যেভাবে পাবেন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট

news-details
জাতীয়

।। নিজস্ব প্রতিবেদক ।।

সরকারি চাকরি, উচ্চশিক্ষা, মাইগ্রেশনসহ বিভিন্ন আবেদনের জন্য প্রয়োজন হয় পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট । আগে এই সেবা পেতে ভোগান্তি পোহাতে হলেও এখন পাওয়া অনেক সহজ। কেননা দেশে বা বিদেশে থেকেও অনলাইনে আবেদন করে সেবাটি পাওয়া যায়। এজন্য অনলাইনে সেবাটি পেতে নিয়ম মেনে আবেদন করলেই হয়। তবে এর জন্য ফি দিতে হবে ৫শ টাকা।

শুধুমাত্র ২০১৮ সালেই সারাদেশে অনলাইনে আবেদনকারী ২ লাখ ১শ ৩৭ জনকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট দিয়েছে পুলিশ। আর অনলাইনে ২০১৭ সালের ১৫ জানুয়ারি এই সেবা শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ঢাকা মেট্রপলিটন এলাকায় ৪৩ হাজার ৯ শ ৯৪টি সার্টিফিকেট দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ডিএমপি।

পুলিশ সদর দফতরের জনসংযোগ কর্মকর্তা কামরুল আহসান জানান, সার্বিকভাবে ২০১৭ সালের ১৫ জানুয়ারি শুরু হয় অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট দেয়ার সেবা। এতে ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেছে। কারণ অনলাইনে যথাযথ প্রক্রিয়ায় আবেদন করে সার্টিফিকেট পেতে জনগনকে কোন ভোগান্তির শিকার হতে হয় না। এজন্য সবাই এখন অনলাইনে আবেদনের দিকেই ঝুকছে। শুধু ২০১৮ সালে সারাদেশে ২ লাখ ১শ ৩৭ জনকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়েছে।

আগে একটি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পুলিশের নানা দপ্তরে দৌড়ঝাঁপ করতে হতো। ম্যানুয়েল পদ্ধতিতে আবেদন করে এই সনদ যোগাড় করা ছিল বিরাট ভোগান্তি। কমিশনার বা এসপি অফিসে গিয়ে আবেদন করা ছাড়া উপায় ছিল না মানুষের। সেখানে যাতায়াত ছাড়াও নানা ভোগান্তি হতো মানুষের।
 
সদর দফতর সূত্র জানায়, আগে পুলিশের ক্লিয়ারেন্স পেতে হলে সংশ্লিষ্ট নাগরিককে থানায় গিয়ে আবেদন এবং পরে সার্টিফিকেটটি থানায় গিয়ে নিয়ে আসতে হতো। ম্যানুয়ালি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে ভোগান্তির শেষ নেই, এমন বিস্তর অভিযোগ জমা হয় সদর দফতরে। ২০১৭ সালের ১৫ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে একযোগে সারাদেশে অনলাইনে সেবাটি দেয়া শুরু হয়।
 
ডিএমপির মিডিয়া সেলের এডিসি ওবায়দুর রহমান জানান, অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট দেয়া শুরু হবার পর থেকে বুধবার পর্যন্ত ঢাকা মেট্রপলিটন এলাকায় ৪৩ হাজার ৯ শ ৯৪টি সার্টিফিকেট দেয়া হয়েছে। মেট্রপলিটন এলাকার কেউ চাইলে স্বশরীরে ডিএমপির সদর দফতরে অবস্থিত পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সেলে গিয়েও ম্যানুয়ালি আবেদন করে এই সার্টিফিকেট পেতে পারেন।

যেভাবে পাবেন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট

ডিএমপির সদর দফতরের ১০৯ নম্বর কক্ষে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট সেবা দেয়া হয়।ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় বসবাসরত নাগরিকরা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেতে সরাসরি যোগাযোগ করুন। হেল্প লাইনঃ- ০২-৭১২৪০০০।
 
অনলাইন বা ম্যানুয়ালি আবেদন, লাগবে পাঁচ শত টাকা

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে লাগবে ৫শ টাকা। বাংলাদেশ ব্যাংক/ সোনালী ব্যাংকের যেকোন শাখা থেকে (১-৭৩০১-০০০১-২৬৮১) কোডে করা ৫০০/- (পাঁচ শত) টাকা মূল্যমানের ট্রেজারি চালান নিতে হবে অথবা অনলাইনে ক্রেডিট/ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে নির্ধারিত সার্ভিসচার্জসহ ফি প্রদান করতে হবে।
 
অনলাইনে আবেদন

অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে হলে যথাযথ নিয়ম মেনে আবেদন করতে হবে। দেশে বা বিদেশে বসে ইন্টারনেট ব্যবহার করে pcc.police.gov.bd ঠিকানায় অথবা বাংলাদেশ পুলিশের ওয়েবসাইটে www.police.gov.bd গিয়ে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স মেন্যুতে ক্লিক করে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। আবেদনের সঙ্গে প্রয়োজনীয় সত্যায়িত দলিলাদি এবং সরকারি ফি ৫শ টাকা পরিশোধের চালান কপি স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে। আবেদনকারীর ব্যক্তিগতভাবে থানায় আসার প্রয়োজন পড়বে না।

আবেদন করতে যা যা লাগবে
 
ঠিকানা: আবেদনকারীর পাসপোর্টে দেয়া স্থায়ী কিংবা বর্তমান ঠিকানার যেকোনও একটি অবশ্যই সংশ্লিষ্ট মেট্রোপলিটন কিংবা জেলা পুলিশের আওতাধীন এলাকায় থাকতে হবে। আবেদনকারীকে কিংবা যার জন্য পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট চাওয়া হয়েছে, তাকে অবশ্যই ওই ঠিকানার বাসিন্দা হতে হবে।

সত্যায়িত

আবেদন পত্রের সঙ্গে প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা দ্বারা সত্যায়িত পাসপোর্টের তথ্য পাতার স্ক্যানকপি। বিদেশে অবস্থানকারী বাংলাদেশি নাগরিকদের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দেশে বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক সত্যায়িত পাসপোর্টের তথ্য পাতার স্ক্যানকপি দিতে হবে।

বিদেশে অবস্থানকারীরাও আবেদন করতে পারবেন

বিদেশে অবস্থানকারী কোনও ব্যক্তির পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট পেতে হলে তিনি যে দেশে অবস্থান করছেন, সে দেশে বাংলাদেশ দূতাবাস কিংবা হাইকমিশনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্তৃক পাসপোর্টের সত্যায়িত স্ক্যান ফটোকপি তার পক্ষে করা আবেদনের সঙ্গে দিতে হবে।
 
মেশিন রিডেবল পাসপোর্টের (এমআরপি) ক্ষেত্রে যদি পাসপোর্টে ঠিকানা উল্লেখ না থাকে সেক্ষেত্রে ঠিকানার প্রমাণ স্বরূপ জাতীয় পরিচয় পত্র বা জন্ম নিবন্ধন সনদপত্র বা স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের সনদপত্রের ফটোকপি প্রথম শ্রেণির সরকারি গেজেটেড কর্মকর্তার মাধ্যমে সত্যায়িত করে দাখিল করতে হবে।
 
যেভাবে আবেদন করতে হবে

অনলাইনে pcc.police.gov.bd বা www.police.gov.bd গিয়ে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স মেন্যুতে ক্লিক করে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। এরপর লগ-ইন করে অ্যাপ্লাই (Apply) মেনুতে ক্লিক করলে একটি আবেদন ফরম আসবে।

আবেদন ফরম ওপেন হবার পর ফরমের প্রথম ধাপে ব্যক্তিগত বিস্তারিত তথ্য দিতে হবে, দ্বিতীয় ধাপে বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা পুরণ করতে হবে। এরপর তৃতীয় ধাপে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের সত্যায়িত স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে। পূরণকরা সকল তথ্য চতুর্থ ধাপে দেখা যাবে। আবেদনে কোনও ভুল থাকলে তা আগের ধাপগুলোতে গিয়ে সংশোধন করা যাবে।

এখানে মনে রাখাতে হবে, চতুর্থ ধাপে আবেদনটি সাবমিট করার পর সংশোধনের আর কোনও সুযোগ থাকবে না। আবেদন ফরমের পঞ্চম ধাপে ফি পরিশোধ করতে হবে। পরিশোধ করার জন্য Pay Offline বাটনে ক্লিক করতে হবে। চালানের মাধ্যেমে ৫০০ টাকা ফি পরিশোধের উপায় এবং পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে সেখানে কিছু নির্দেশনা থাকবে। সেসব নির্দেশনা অনুসরণ করতে হবে। চালানের মূল কপিটি আপলোড করার আগে অবশ্যই এর ওপর অ্যাপ্লিকেশন রেফারেন্স নম্বরটি লিখে দিতে হবে। অন্যথায় আপনার পেমেন্টটি গ্রহণযোগ্য হবেনা এবং আবেদনটি বাতিল হয়ে যাবে।

আবেদনকারী অনলাইনে তার আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা চাইলেই জানতে পারবেন। পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার স্বাক্ষর, পুলিশ সুপার/উপ-পুলিশ কমিশনারের প্রতিস্বাক্ষর এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সত্যায়ন হওয়ার পর আবেদনকারী ব্যক্তিগতভাবে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় অথবা মহানগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের ওয়ান স্টপ সার্ভিস কাউন্টার থেকে হাতে হাতে নিতে পারবেন।
 
আবেদনকারী কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে সার্টিফিকেট গ্রহণ করতে চাইলে তা আবেদনের নির্ধারিত জায়গায় উল্লেখ করতে হবে। সে ক্ষেত্রে কুরিয়ার ফি পরিশোধ সাপেক্ষে আবেদনকারী ঘরে বসে সার্টিফিকেট পেতে পারেন।
 
আসল নকল যাচাইয়ে কিউআর কোড
 
ডিএমপির মিডিয়া সেলের এডিসি ওবায়দুর রহমান জানান, এই সার্টিফিকেটের একটি বৈশিষ্ট্য হলো, এতে একটি কিউআর কোড প্রিন্ট করা থাকে। যে কোনো স্মার্টফোন থেকে কিউআর কোড স্ক্যানার এ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে কোডটি স্ক্যান করলে ইস্যুকৃত সার্টিফিকেটের একটি অনলাইন লিংক পাওয়া যাবে। যে কোনো ইন্টারনেট ব্রাউজার ব্যবহার করে লিংকটি ভিজিট করলে ইস্যুকৃত সার্টিফিকেটের একটি অবিকল ডিজিটাল কপি কম্পিউটারে দেখা যাবে।
 
ফলে এখন থেকে বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক ইস্যুকৃত পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট জাল হওয়ার কোনো সম্ভাবনা থাকবে না এবং যে কোন বিদেশি মিশন অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট যাচাই করতে পারবে।

আবেদনের আপডেট যানবেন যেভাবে

আবেদনের আপডেট পেতে মোবাইলের মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন PCC S এরপর আপনার আবেদনের রেফারেন্স নম্বর লিখে পাঠিয়ে দিন 6969 নম্বরে। ফিরতি এসএমএস এ পেয়ে যাবেন আপনার আবেদনের সর্বশেষ আপডেট।

You can share this post on
Facebook

0 Comments

If you want to comment please Login. If you are not registered then please Register First