ব্রেকিং নিউজ

ঘন কুয়াশা পঞ্চগড়ে বাড়িয়েছে শীতের তীব্রতা

news-details
দেশজুড়ে

পঞ্চগড় প্রতিনিধি : 

কয়েকদিন বিরতির পর উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে আবারো বেড়েছে শীতের তীব্রতা। ঘন কুয়াশা আর ঠাণ্ডা বাতাসে দুর্ভোগ বেড়েছে  নিম্ন আয়ের মানুষের। দিনে অল্প সময়ের জন্য সূর্যের দেখা মিললেও তাতে তেমন উত্তাপ মিলছে না।

গতকাল শনিবার (১১ জানুয়ারি) পঞ্চগড়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১১ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। আজ রবিবার তা আরো কমে দাঁড়ায় ৯ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এবার পৌষের শুরু থেকে এ পর্যন্ত অধিকাংশ সময় পঞ্চগড়ে দেশের সর্বনিম্ন  তাপমাত্রা বিরাজ করছে। তবে বেলা ডোবার সাথে সাথে ঘন কুয়াশায় কমে আসছে তাপমাত্রা।

গত কয়েক দিন ধরেই প্রায় সারা দিনই হিমালয়ের উত্তর পশ্চিমাঞ্চল থেকে ধেয়ে আসা ঠাণ্ডা বাতাস বয়ে চলেছে। সন্ধ্যা থেকে রাত ও রাত থেকে দুপুর পর্যন্ত ঘন কুয়াশায় ঢেকে থাকছে চারপাশ। শীতের প্রকোপ বাড়ার সাথে সাথে দুর্ভোগও বাড়ছে জেলার নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষের। প্রয়োজনীয় শীতবস্ত্রের অভাবে কষ্টে রাত কাটে তাদের। খড়কুটো জ্বালিয়ে তারা শীত নিবারণের চেষ্টা করছেন। রাত বাড়ার সাথে সাথে রাস্তাঘাট হাঁটবাজার ফাঁকা হয়ে আসছে।

এদিকে, সরকারি বেসরকারিভাবে জেলায় এবার ৪৫ হাজার শীতবস্ত্র ও দুই হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার ও এক লাখ টাকার শিশুখাদ্য বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া শীতের তীব্রতা বাড়ায় হাসপাতালগুলোর বহির্বিভাগে প্রতিদিন শীতজনিত রোগীর ভিড় থাকছেই। পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রতিদিন শতাধিক রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। এদের বেশিরভাগই শিশু ও বৃদ্ধ। যারা বেশি অসুস্থ হয়ে পড়ছেন তারাই কেবল হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন।

এছাড়া শীতের প্রকোপে বোরোর বীজতলা রক্ষায় পলেথিন দিয়ে ঢেকে দিচ্ছেন কৃষকরা। তবে শীতে ফসল রোগ বালাই ও পোকামাকড়ে আক্রান্ত হলে কৃষি কর্মকর্তাদের পরামর্শ নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে কৃষি বিভাগ। 

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রহিদুল ইসলাম বলেন, গত দুদিন ধরে ঘন কুয়াশা থাকছে পঞ্চগড়ে। সেই সাথে হিমালয়ের উত্তর পশ্চিমাঞ্চল থেকে ধেয়ে আসছে ঠাণ্ডা  বাতাস। এছাড়া তাপমাত্রাও কমে আসছে। আরো কয়েকদিন তামপাত্রা কম থাকবে বলেও জানান তিনি। 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।