ব্রেকিং নিউজ

ছেলেকে নিয়ে ঢাকায় ফেরা হলো না মাহমুদার

news-details
জাতীয়

আমাদের প্রতিবেদক : 

এক সন্তান আর স্ত্রীকে নিয়ে অল্প আয়ে সুখেই চলছিল রুবেল খানের সংসার। কাজের তাগিদে স্বপরিবারে থাকতেন রাজধানীর মীরবাগের একটি বাসায়। দ্বিতীয় শ্রেনী পড়ৃয়া ছেলে মমিন খানের মাদরাসা বন্ধ থাকায় কয়েকদিন আগেই দাদু বাড়ি বরিশালের বাকেরগঞ্জে বেড়াতে গিয়েছিলেন রুবেল খান। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস। ঢাকায় আর ফেরা হলো না মা মাহমুদা ও ছেলে মোমিনের। মেঘনা নদীতে দুটি লঞ্চের সংঘর্ষে নিহত হন তারা।

চোখের সামনে দুর্ঘটনায় আপনজনদের চলে যাওয়া। এর চেয়ে কষ্টের আর কি হতে পারে রুবেল খানের। প্রচণ্ডভাবে ভেঙ্গে পড়েছেন তিনি। বুক চাপা কষ্ট আর শোকের সাগরে ভাসা পরিবারে বেঁচে থাকা একমাত্র সদস্য রুবেলের আকুতি, এমন মৃত্যু যেনো আর কারো না হয়। এমন দুর্ঘটনা যেন আর কারো জীবনে না ঘটে।

সোমবার রাতে ঘন কুয়াশার কারণে বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার মাঝের চর এলাকায় মেঘনা নদীতে ঢাকাগামী এমভি কীর্ত্তনখোলা-১০ ও হুলারহাটগামী ফারহান-৯ লঞ্চের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই কীর্ত্তনখোলা-১০ এর দুই যাত্রী নিহত হয়। আহত হয় ৮ যাত্রী।

এঘটনায় লঞ্চ দুটির রুট পারমিট অস্থায়ীভাবে স্থগিত করা হয়েছে। দুর্ঘটনার কারন ও দায়ী ব্যক্তি সনাক্ত করতে ৪ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে ৫ দিনের মধ্যে।

এদিকে লঞ্চ মালিক সমিতি ও বিআইডব্লিউটিএ যৌথভাবে করা কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে মৃত ২ জনকে আড়াই লক্ষ টাকা করে দেয়া হবে। আহতদেরকে চিকিৎসার দায়িত্ব নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট লঞ্চ মালিকদের নির্দেশ দিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।