ব্রেকিং নিউজ

এলজিইডির দুই গাড়ি চালক গাঁজাসহ আটক

news-details
দেশজুড়ে

 আলমডাঙ্গা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি : 

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা থেকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) দুই গাড়িচালক ও এক নারীকে চার কেজি গাঁজাসহ আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (১২ ফেব্রুয়ারি ) রাত ২ টার দিকে উপজেলার ওসমানপুর গ্রাম থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের বহনকারী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের লোগোযুক্ত মাইক্রোবাসটিও জব্দ করে পুলিশ।

আটক ইউসুফ আলী দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরের আব্দুল জলিলের ছেলে ও রিপন আলী ফরিদপুর সদর উপজেলার সমোসপুর গ্রামের সোহরাব উদ্দিনের ছেলে। তারা দু‘জন ঢাকার আগারগাঁওয়ের এলজিইডির গাড়িচালক বলে জানিয়েছেন। তাদের সঙ্গে আটক হামিদা বেগম কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কাকিলাদহ গ্রামের আব্দুল করিমের মেয়ে। তিনি ঢাকায় একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিতে চাকরী করেন।

থানার ওসি (তদন্ত) গাজি শামিমুর রহমান জানান, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্টিকার লাগানো মাইক্রোবাসে করে চার কেজি গাঁজা বহনকালে এক নারীসহ তিনজনকে আটক করা হয়েছে। দুইজন ঢাকার আগারগাঁওয়ের এলজিইডির গাড়িচালক বলে স্বীকারোক্তিতে জানিয়েছেন। বিষয়টির সত্যতা যাচাই চলছে।

আটক গাড়িচালক ইউসুফ আলী জানায়, তাদের অফিসের নজরুল স্যার তার এক বন্ধুকে ঢাকা থেকে কুষ্টিয়ায় নিয়ে যেতে বলেন। তাকে কুষ্টিয়ার বটতৈল নামক স্থানে নামিয়ে হামিদা বেগমের বাড়িতে যান। রাতে তাকে গাড়িতে তুলে নিয়ে পূর্বপরিচিত কুষ্টিয়ার মিরপুরের ঝুটিয়াডাঙ্গা গ্রামের ফরমান নামের একজনের জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন। ফরমান গাঁজা নিয়ে গাড়িতে উঠলে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেন তারা।

পুলিশ জানায়, থানার এসআই আব্দুর রহিম, এসআই নাঈম ও আশরাফ টহল দেয়ার সময় গভীর রাতে মাইক্রোবাসটির গতিরোধ করেন। এ সময় তল্লাশী চালিয়ে গাড়িতে গাঁজার চার কেজির দুইটি প্যাকেট পাওয়া যায়। পুলিশ তিনজনকে আটক করতে পারলেও ফরমান পালিয়ে যান। আটক তিনজনের নামে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।