ব্রেকিং নিউজ

ওয়েস্টিনই ছিল পাপিয়ার পাপের সদর দফতর

news-details
ক্রাইম নিউজ

আমাদের প্রতিবেদক

গুলশানের অভিজাত হোটেল ওয়েস্টিনকেই সব ধরনের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের সদর দফতর বানিয়েছিলো আলোচিত যুব মহিলা লীগের বহিস্কৃত নেত্রী পাপিয়া। অর্থ আর দলীয় পরিচয় ব্যবহার করে এখান থেকেই বিভিন্ন হোটেল ও আবাসিক এলাকায় বিস্তৃত করা হয় সম্রাজ্য। আড়ালে সহযোগী হিসেবে কাজ করেছে ওয়েস্টিন কর্তৃপক্ষ।

একজন জেলা পর্যায়ের নেত্রীর পরিচয়ে রাজধানীর গুলশান এলাকায় কীভাবে এমন প্রভাব বিস্তার করা সম্ভব! তদন্ত করতে গিয়ে অবাক হয়েছেন কর্মকর্তারা। সহযোগী ছাড়াও পাঁচ তারকা হোটেলে পাপিয়ার বালাখানায় কারা আসা যাওয়া করতো তালিকা ধরে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

সুন্দরী তরুণীদের দিয়ে ব্যবসায়ী, সমাজের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ফাঁদে ফেলে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে নরসিংদির ‘ট্যাটু বাহিনী’ প্রধান পাপিয়া।

চাকরি দেয়ার নাম করে অসহায় সুন্দরী তরুণীদের ওয়েস্টিন হোটেলে এনে বাধ্য করা হতো অনৈতিক কাজে। এসব তরুণীদের ঘিরেই বিকৃত রঙ্গমঞ্চ তৈরি করা হয় হোটেলের প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটে।

এখানে পাপিয়া বাহিনীর কর্মকাণ্ড ছিলো ওপেন সিক্রেট। শুধু খদ্দের আনাই নয়, বিশেষ কক্ষে ওয়েস্টিনের কর্ণধার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুর আলীর সঙ্গেও খোলামেলা খোশগল্পে মেতে উঠতো কথিত যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী পাপিয়া। যে ভিডিও এখন ভাইরাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ভিডিওতে পাপিয়ার সাথে ওয়েস্টিন কর্ণধারের ঘনিষ্ঠতার চিত্র ফুটে উঠে। গেলো জাতীয় নির্বাচনে দোহার নবাবগঞ্জ এলাকায় একজন প্রার্থীকে কীভাবে কোটি কোটি টাকা আর জাল ভোটের মাধ্যমে পাস করিয়েছেন সে কথাই অবলীলায় বলা হচ্ছে পাপিয়াকে।

এছাড়াও পাঁচ তারকা হোটেলটিতে ব্যাপক কদর ছিলো পাপিয়ার। কারণ স্পেশাল পার্টি আর এক্সক্লুসিভ বাড়ে অবৈধ বিদেশি মদের গুণতেন প্রতিদিন গড়ে আড়াই লাখ টাকা। পাপিয়া গেলো এক বছরে প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটের ভাড়াই দিয়েছে পৌনে ২ কোটি টাকা।

ওয়েস্টিনের সবচেয়ে ব্যয়বহুল সুরক্ষিত প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুট অনির্দিষ্টকালের জন্য পাপিয়ার নামে বুকিং ছিলো। কীভাবে পাপিয়া বাহিনী এসব অপকর্ম কুকর্ম চালাতো, সে বিষয়ে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি ওয়েস্টিন কর্তৃপক্ষের কাছে।

পাপিয়ার সাথে ঘনিষ্ঠতার ভাইরাল হওয়া ভিডিওর ব্যাপারে জানতে বারবার যোগাযোগ করেও সাড়া মেলেনি ওয়েস্টিনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুর আলীর। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বলছে, পাপিয়ার সহযোগীদের ব্যাপারেও তদন্ত করছেন তারা।
 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।