ব্রেকিং নিউজ

সেই ৩ সার্ভেয়ারের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

news-details
দেশজুড়ে

কক্সবাজার প্রতিনিধি

ঘুষ কেলেঙ্কারির অভিযোগে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের তিন সার্ভেয়ারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণার মাধ্যমে ক্ষমতার অপব্যবহার করে ভূমি অধিগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদের কাছ থেকে ৯৩ লাখ ৬০ হাজার ১৫০ টাকা ঘুষ নেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেল ৩টার দিকে দুর্নীতি দমন কমিশন জেলা সমন্বিত কার্যালয় চট্টগ্রাম-২ (কক্সবাজার) এর উপ-সহকারী পরিচালক মো. শরীফ উদ্দিন বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলাটি নথিভুক্ত করেন সেখানকার আরেক উপ-সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল মালেক।

মামলার আসামিরা হলেন- কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সার্ভেয়ার পটুয়াখালীর বাউফল থানার ধান্দি গ্রামের দলিল উদ্দিন খানের ছেলে ওয়াসিম খান (৩৭), কুমিল্লার দেবিদ্বার থানার বানি গ্রামের খান বাড়ির ময়নাল খানের ছেলে ফেরদৌস খান (৩৬) এবং পটুয়াখালীর বাউফল থানার গৌসিংগা গ্রামের আবু বকর সরদারের ছেলে ফরিদ উদ্দিন (৩৬)।

এদের মধ্যে ওয়াসিম খান র‍্যাবের হাতে ঘুষের টাকাসহ আটক হন। অপর দু’জন এখনও পলাতক রয়েছেন। ঘটনার পর থেকে তারা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে কিংবা তাদের ভাড়া বাসায়ও যাননি।


দুদকের মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, পরস্পর যোগসাজশে দুষ্কর্মে সহায়তা করে তারা দীর্ঘদিন যাবৎ ঘুষ লেনদেন করে আসছেন। এতে প্রমাণিত হয়, তাদের একটি সংঘবদ্ধ চক্র রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৯ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজার শহরের বাহারছড়া এলাকায় জনৈক আব্দুল হালিম প্রকাশ লালুর বাড়ির দ্বিতীয় তলার একটি ভাড়া বাসা থেকে ঘুষের টাকাসহ সার্ভেয়ার ওয়াসিমকে আটক করে র‍্যাব। এ সময় সার্ভেয়ার ফরিদ উদ্দিন ও ফেরদৌস খানসহ আরও কয়েকজন পালিয়ে যায়।

ওয়াসিমের স্বীকারোক্তি অনুসারে ওই বাসা থেকে নগদ ৬৬ লাখ ৭৫ হাজার ৫৫০ টাকা উদ্ধার করা হয়। পরে শহরের তারাবনিয়ার ছড়া এলাকায় সার্ভেয়ার ফেরদৌসের ভাড়া বাসায় অভিযান চালিয়ে ২৬ লাখ ৮৪ হাজার ৬০০ টাকা উদ্ধার করা হয়। দুই বাসা থেকে বিভিন্ন ব্যাংকের চেক ও প্রায় সাত বস্তা সরকারি নথি উদ্ধার করা হয়।
 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।