ব্রেকিং নিউজ

মারধরের পর শরীরে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে বৃদ্ধাকে হত্যা, ৪ নারী গ্রেপ্তার

news-details
দেশজুড়ে

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

গোপালগঞ্জে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে পিটিয়ে, শরীরে গরম পানি ঢেলে ও শুকনা মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে কুলসুম বেগম (৬০) নামে এক বৃদ্ধাকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৪ নারীকে গ্রেপ্তার করেছে।

এর আগে শনিবার সকালে জেলার কোটালীপাড়া উপজেলার রাধাগঞ্জ ইউনিয়নের রাজিন্দারপাড় গ্রামে ওই বৃদ্ধাকে নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। পরে শনিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিতে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় রাতেই কোটালীপাড়ায় থানায় ৭ জনকে আসামি করে হত্যামামলা দায়েরের পর পুলিশ ৪ নারীকে গ্রেপ্তার করেছে।

নিহত  কুলসুম বেগম কোটালীপাড়া উপজেলার রাজিন্দারপাড় গ্রামের সবর আলী সিকদারের দ্বিতীয় স্ত্রী। নিহতের ভাই স্কুলশিক্ষক কালাম ফকির জানান, সৎ ছেলেদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে কুলসুমের বিরোধ চলে অসছিলো। কুলসুমকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করার জন্য শনিবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে সৎ ছেলে আলাউদ্দিন সিকদার তার স্ত্রী রোকেয়া বেগম, মেয়ে লিমা সিকদার ও আলাউদ্দিনের ভাই রিপন সিকদার কুলসুমের ওপর হামলা করে। তাকে পিটিয়ে মাথা ফাটিয়ে গায়ে গরম পানি ঢেলে ও শুকনা মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেয়। কুলসুমের ২ ছেলে ও ছেলের বউ তাকে উদ্ধারের জন্য এগিয়ে আসলে তাদেরও মারপিট করা হয়। তাদের শরীরেও গরম পানি ঢেলে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেওয়া হয়। 

ওই স্কুল শিক্ষক আরো জানান, তার বোন  কুলসুমকে উদ্ধার করে প্রথম কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল ও বিকেলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত সাড়ে ৮ টার দিকে তিনি খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তিনি বলেন, আমরা এ নির্মম হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই।

কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান বলেন, এ ঘটনায় শনিবার রাতেই ৭ জনকে আসামি করে হত্যামামলা দায়ের করা হয়েছে। রাতেই অভিযান চালিয়ে এ ঘটনায় জড়িত ৪ নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।