নেত্রকোনায় কলেজছাত্রীকে কুুপিয়ে জখম

news-details
জাতীয়

।। নেত্রকোনা প্রতিনিধি ।।

নেত্রকোনা জেলার আটপাড়ার শুনই ইউনিয়নের মল্লিকপুর শুনই গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজন মো. আবুল হাসেমের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে মোছা. রনি আক্তারকে বুধবার সন্ধ্যায় কুপিয়ে জখম করেছে। পরে তাকে আটপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহতের ভাই মো. রুহুল আমীন বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার আটপাড়া থানায় ১১ জনের বিরুদ্ধে আরো একটি মামলা করেন। পুলিশ রুমান মিয়া নামে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

জানা গেছে, জেলার আটপাড়া উপজেলার মল্লিকপুর শুনই গ্রামের হাসেন আলীর সাথে দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের মো. আবুল হাসেমের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। এরই জের ধরে শনিবার বিকেলে হাসেন আলীর পক্ষে মো. মাছুম, মামুন ও. মাজহারুলের নেতৃত্বে ১০-১১ জন রামদা লাঠী নিয়ে আবুল হাসেমের বাড়িতে হামলা চালায়।

হামলাকারীরা আবুল হাসেমের স্ত্রী রীনা আক্তার, মেয়ে নেত্রকোনা আবু আব্বাছ ডিগ্রি কলেজের স্নাতক শ্রেণির শিক্ষার্থী মোছা. জনি আক্তার, একই কলেজের এইচএসসির ছাত্রী মোছা. চুমকি আক্তার ও উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোছা. পনি আক্তারকে এলোপাথারী কুপিয়ে ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে।

এ ঘটনায় মো. রুহুল আমীন বাদি হয়ে রোববার রাতে আটপাড়া থানায় ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। আসামিরা জামিনে বাড়ি গিয়ে বাদি ও পরিবারের অন্যদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিচ্ছিল। বুধবার সন্ধ্যায় আহত মা বোনের জন্য আবু আব্বাস ডিগ্রি কলেজের স্নাতক শ্রেণির শিক্ষার্থী মোছা. রনি আক্তার বাড়ি থেকে ভাত নিয়ে আটপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাচ্ছিল। বাড়ির সামনে পুকুরপাড়ে হাসেন আলীর ছেলে রুমান মিয়াসহ ৪-৫ জন তার পথ আটকে দা দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে জখম করে। আহত রনি আক্তারকে আটপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রুমান মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে।

আটপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলী হোসেন হামলা ও মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

 

 

 

You can share this post on
Facebook

0 Comments

If you want to comment please Login. If you are not registered then please Register First