ব্রেকিং নিউজ

ইউএনও ওয়াহিদা খানমের উপর হামলার ঘটনায় মামলা

news-details
দেশজুড়ে

দিনাজপুর প্রতিনিধি :

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনে ঢুকে তাকে হাতুড়ি দিয়ে মুখমণ্ডল ও মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় পিটিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে ঘোড়াঘাট থানায় এ সংক্রান্ত এজাহার দায়ের করেন আক্রান্ত ইউএনও’র ভাই মো. শেখ ফরিদ উদ্দিন।

মুঠোফোনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, এজাহারে অজ্ঞাত ৪ থেকে ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। তার ভাই মামলার বাদী হয়েছেন। সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে; তদন্তের স্বার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গতকাল বুধবার গভীর রাতে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনে ভেনটিলেটর ভেঙে প্রবেশ করে তার ও তার বাবার ওপর হামলা করে দুর্বৃত্তরা। এর আগে গেটে দারোয়ানকে বেঁধে ফেলে তারা। গুরুতর আহত ইউএনও ও তার বাবাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখান থেকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ইউএনও ওয়াহিদাকে ঢাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, বিদেশে নেওয়ার চেষ্টা চললেও তার শারীরিক অবস্থা ভালো নয় বলে তা সম্ভব হচ্ছে না। তবে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস অ্যান্ড হসপিটালে বৃহস্পতিবার রাতে তার প্রথম অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। তার অবস্থা এখনও সংকটাপন্ন।

এদিকে ওয়াহিদা খানমের ওপর হামলার ঘটনায় দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) ভোরে পুলিশ ও র‌্যাবের যৌথ অভিযানে দিনাজপুরের হাকিমপুর থেকে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার ব্যক্তিরা হলেন- মূল হামলাকারী আসাদুল ওরফে আরশাদুল ও জাহাঙ্গীর।

হাকিমপুর থানার ওসি ফেরদৌস ওয়াহিদ গণমাধ্যমে এ তথ্য জানান। তিনি জানান, পুলিশ আর র‌্যাবের যৌথ অভিযানে তারা ধরা পড়েন। তারা দু'জন ইউএনওর বাসায় ঢোকেন। সিসিটিভিতে তাদেরই দেখা গেছে।

ওসি জানান, জড়িতদের একজন মাদকাসক্ত। দু'জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।