ব্রেকিং নিউজ

স্কুলছাত্রী নীলা হত্যার প্রধান আসামি মিজান ও তার মা-বাবা গ্রেপ্তার

news-details
দেশজুড়ে

 সাভার

সাভারে চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী নিলা রায় (১৫) হত্যা মামলার প্রধান আসামি কিশোর গ্যাং সদস্য মিজানুর রহমান মিজানকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

শুক্রবার রাত ৯টার দিকে সাভারের ফুলবাড়িয়া এলাকার স্থানীয় পারভেজের বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে হত্যায় ব্যবহূত ছুরি ও ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

ঢাকা জেলা উত্তর ডিবি পুলিশের পরিদর্শক আবুল বাশার জানান, তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় মিজানের অবস্থান শনাক্ত করে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে মিজানের বাবা আব্দুর রহমান (৬০) ও মা নাজমুন্নাহার সিদ্দিকাকে (৫০) গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। তারা এ হত্যা মামলার দুই ও তিন নম্বর আসামি। মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলার চারিগ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। শুক্রবার সকালে র‌্যাব তাদেরকে সাভার মডেল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। তারা সাভার পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের এ-৭৪/২ ব্যাংক কলোনির সাইদুল আলমের বাসায় ভাড়া থাকেন। এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় এ নিয়ে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে নীলা রায় হত্যার প্রতিবাদ এবং মিজান ও তার সহযোগীদের গ্রেপ্তার ও বিচার দাবিতে পৃথক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে বিভিন্ন সংগঠন। সাভারে ধ্বসে পড়া রানা প্লাজার অস্থায়ী বেদীর সামনে বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) সাভার উপজেলা শাখার উদ্যোগে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ হয়। এতে উপজেলা শাখার আহ্বায়ক কমরেড সৌমিত্র কুমার দাসের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন বাসদ ঢাকা নগর শাখার সদস্য কমরেড খালেকুজ্জামান লিপন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আহ্বায়ক শোভন রহমান, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিকফ্রন্ট আশুলিয়া থানার সভাপতি মাফিজুল ইসলাম।

অন্যদিকে বাংলাদেশ জাতীয় হিন্দু ছাত্র ও যুব মহাজোটের উদ্যোগে সাভার থানা রোডের বঙ্গবন্ধু চত্বরে অভিযুক্ত মিজান ও তার সহযোগীদের ফাঁসি দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ হয়। শনিবারও সাভার নাগরিক কমিটির ব্যানারে মানববন্ধন ও জেলা প্রশাসনের কাছে স্মরকলিপি দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

র‌্যাব-৪ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জমির উদ্দিন আহমেদ প্রধান আসামি মিজানের মা-বাবাকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

গত ২০ সেপ্টেম্বর রাতে নীলা রায়তে তুলে নিয়ে নির্যাতন শেষে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে হত্যা করে মিজান। এ ঘটনায় পরদিন মিজানকে প্রধান আসামি করে তার মা-বাবাসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে সাভার থানায় মামলা করেন নিহত নীলার বাবা নারায়ণ রায়। ২৩ সেপ্টেম্বর মানিকগঞ্জের আরিচা থেকে সেলিম পালোয়ান নামে মিজানের এক সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর দু'দিন পুলিশ রিমান্ড শেষে তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সে ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।


 

You can share this post on
Facebook

0 মন্তব্য

মন্তব্য করতে লগইন করুন অথবা নিবন্ধন করুন ।